মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৩
শীর্ষ সংবাদ

মতামত

কঠোর লকডাউন : ঘোষণা ও দায়িত্ব
মতামত

কঠোর লকডাউন : ঘোষণা ও দায়িত্ব

রাজেকুজ্জামান রতন:: করোনায় ভয়াবহতা বাড়ছে। ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ও মৃত্যু ঘটছে। এটা শুধু বাংলাদেশে নয় ইউরোপ, ব্রাজিল, ভারতেও বেড়েছে মৃত্যু। ভারতে ও ব্রাজিলে মৃত্যু গত বছরের রেকর্ড অতিক্রম করছে। বাংলাদেশে করোনার তিনটি ভ্যারিয়েন্টের কথা বলা হচ্ছে। যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ব্রাজিলিয়ান ভ্যারিয়েন্ট। তবে শনাক্তের ৮১ শতাংশই হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট। এর সংক্রমণে দ্রুত রোগীর ফুসফুস আক্রান্ত হয়, প্রচুর অক্সিজেন প্রয়োজন হয়, হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে ফিরতে সময় লাগছে বেশি। ফলে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। এক দিনে এত মৃত্যু বাংলাদেশেও গত বছর ঘটেনি। গত বছরের তুলনায় সংক্রমণ, শনাক্ত ও মৃত্যু তিনটাই বেশি করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে। এ পর্যন্ত ১০ হাজারের মতো মৃত্যুবরণ করলেও অনেকেই বলছেন মৃত্যুর সংখ্যা হয়তো আরও বেশি। নিঃসন্দেহে পরিস্থিতি গত বছরের তুলনায় ভীতিকর। কিন্তু মৃত্যু, শনাক্ত বেড়ে যাওয়া সত্ত্বেও সাধারণ ম...
করোনায় দায়হীন প্রশাসন ভয়হীন জনতা
মতামত

করোনায় দায়হীন প্রশাসন ভয়হীন জনতা

রাজেকুজ্জামান রতন :: স্বাস্থ্য খাতে বিশেষত করোনা মোকাবিলায় সীমিত বাজেটেও উদ্যোগগুলো কেমন নেয়া দরকার, তা নিয়ে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অন্তত বাস্তবায়িত হবে সে প্রত্যাশা নিশ্চয়ই অমূলক ছিল না। অতীতের অভিজ্ঞতা থেকে সবাই বলেছেন, মহামারির দ্বিতীয় ঢেউটা প্রথমটার চেয়ে মারাত্মক হয়ে থাকে। কে শোনে কার কথা! প্রথমবার ছিল দম্ভ। আমরা করোনার চেয়ে শক্তিশালী। আর দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রাক্বালে আত্মতৃপ্তি। আমরা করোনা জয় করতে পেরেছি, বাকি সবকিছুই জয় করতে পারব। করোনায় ভয়াবহতা বাড়ছে। শুধু বাংলাদেশে নয় ইউরোপ, আমেরিকা, ব্রাজিল, ভারতেও বাড়ছে মৃত্যু। ভারত এবং ব্রাজিলে মৃত্যু গত বছরের রেকর্ড অতিক্রম করছে। আর এক দিনে এত মৃত্যু বাংলাদেশেও গত বছর ঘটেনি। গত বছরের তুলনায় সংক্রমণ, শনাক্ত ও মৃত্যু তিনটাই বেশি করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে। টানা কয়েক দিন মৃত্যু ৬০ জনের বেশি এবং এক দিন তা ৬৬ জনে উন্নীত হয়েছে আর শনাক্ত ৭ হাজার...
করোনা: শত্রুর সাথে বসবাসের ১৩ মাস
মতামত

করোনা: শত্রুর সাথে বসবাসের ১৩ মাস

আবু নাসের অনীক:: করোনা সংক্রমণের ১৩ মাস পার করেছি আমরা। গত বছরের এপ্রিল-মে’র কথা স্মরণ করুন, রোগী টেস্ট করাতে পারছেনা, এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতাল ঘুরে ভর্তি হতে পারছে না, এম্বুল্যান্সেই মারা যাচ্ছে। এই সময়ে এসে একই চিত্র! মানুষ চিকিৎসার জন্য এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটছে কিন্তু চিকিৎসা পাচ্ছে না, অক্সিজেন পাচ্ছে না, আইসিইউ নেই। হাসপাতালের বারান্দায় অথবা এ্যাম্বুলেন্সেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। গত ১৩ মাস ধরে এই ‘বায়োলজিক্যাল ওয়ারে’ এটিই আমাদের অর্জন। আমরা খাঁদের কিনারে এসে দাঁড়িয়েছি। চারপাশে নিকষ কালো অন্ধকার, সামনে-পিছনে হাতড়িয়ে অবলম্বন হিসাবে কিছুই ধরতে পারছি না, নিমজ্জিত হচ্ছি খাঁদে। কে টেনে তুলবে আমাদের? সেখানেও আশার আলো নেই। দেশে সংক্রমণ শুরুর পর থেকে আজকে পর্যন্ত যদি বিশ্লেষণ করি, অনায়াসেই বলা যায় আজকের অবস্থার সম্মুখীন হবার কথা ছিলো না। চাইলেই এই যুদ্ধে বিজয় অর্জন ...
করোনা: নিয়ন্ত্রণে হ-য-ব-র-ল!
মতামত

করোনা: নিয়ন্ত্রণে হ-য-ব-র-ল!

আবু নাসের অনীক:: তথাকথিত লকডাউনের দ্বিতীয় দিন থেকেই এটা সম্পূর্ণই অকার্যকর হয়ে পড়েছে। সমন্বিত পরিকল্পনার অভাবেই কার্যকর করা গেলো না। প্রথম দিনের প্রতিক্রিয়াতেই লিখেছিলাম, কার্যকর হওয়া সম্ভব না। আজকের তৃতীয় দিনে এসে এটা দিনের আলোর মতো পরিস্কার। ১৮ দফা বলি আর ১১ দফা নির্দেশনা তা শুধুই ঘোষণায়! এক একটা দিন এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এক দিনের ভুলের মাশুল সংক্রমণ আর মৃত্যু কয়েকগুণ বাড়িয়ে তোলা। নির্দেশনা উপেক্ষা করে বেসরকারী অফিসগুলো চলছে, গণপরিবহন খুলে দেওয়া হয়েছে, ব্যবসায়ীদের দাবির প্রতি একাত্ম হয়ে মার্কেটও হয়তো খুলে দেওয়া হবে। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা: বে-নজির আহমেদ বলেন,‘তার মানে শহরের ভেতর ছড়ানোর যে ব্যবস্থা, সেটা বজায় থাকলো। যারা অফিস যাচ্ছে, তাদের মধ্যে কেউ আক্রান্ত, সে অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাবেই নিশ্চিত। আবার বাস থেকে আক্রান্ত হয়ে ভাইরাস বাসায় নিয়ে গেল। বাসার লোক আক্রান্ত হবে। এভাবে এক...
করোনা: উদাসীনতা কার সরকারের না জনগণের!
মতামত

করোনা: উদাসীনতা কার সরকারের না জনগণের!

আবু নাসের অনীক:: ‘উদ্ভট উটের পিঠে চলেছে স্বদেশ’। এমন উদ্ভট ত্রিভুবনে মেলা খুবই ভার। করোনা সংক্রমণ সুনামীর মতো ধেয়ে আসছে। এই প্রবল স্রোত মোকাবেলা করার ক্ষেত্রে সরকারের উদ্ভট মার্কা সিদ্ধান্তগুলো তৃতীয় শ্রেণীর কৌতুকের মতো মনে হচ্ছে। অনেক আলোচনা-সমালোচনার পর তথাকথিত লকডাউন শুরু হয়েছে দেশে। বোঝায় যাচ্ছে এটা কার্যত পরিস্থিতি মোকাবেলায় যথার্থ ভূমিকা নিতে ব্যর্থ হবে এবং বরাবরের মতো এ বিষয়ে পূর্বের কোন অভিজ্ঞতা এবারও কাজে লাগায়নি। সরকারের এটা জানা ছিলো, লকডাউনের ঘোষণা আসলেই রাজধানী থেকে বাইরে যাবার জন্য জনগণ হুমড়ি খেয়ে পড়বে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, পরিবহন মালিক-শ্রমিক এদের সমন্বয়ে পূর্বের পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব ছিলো। কিন্তু সরকার সেই পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে বিরত থাকলো। গত ২ দিনে ঢাকা ছেড়ে যাওয়া কে কেন্দ্র করে যে জনাসমাগম ঘটলো সেটা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের ১৮ দফা নির্দেশনার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। কার উদাসীনতা দেখা...
‘বেশি খুশিই কাল হয়েছে’: আমরা কিন্তু খুশি হতে পেরেছিলাম না!
মতামত

‘বেশি খুশিই কাল হয়েছে’: আমরা কিন্তু খুশি হতে পেরেছিলাম না!

আবু নাসের অনীক:: করোনা সংক্রমণের যেমন উল্লম্ফন ঘটেছে, একই সাথে মৃত্যুরও। গ্রাফ খাড়াখাড়িভাবে উপরের দিকে উঠছে। প্রতিদিন সংক্রমণ ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হচ্ছে, গতকাল ছিলো রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণ ৬ হাজার ৪৫৯, আজ সেটিকে অতিক্রম করে নতুন রেকর্ড হয়েছে ৬ হাজার ৮৩১। গত বছরে এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি আমাদের হতে হয়নি। পূর্ণাঙ্গ লকডাউন করতে না পারলেও সাধারণ ছুটি সংক্রমণ বিস্তারে বাধা সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছিলো। পরিতাপের বিষয় দেশে সংক্রমণ শুরুর পূর্ব থেকেই সরকার করোনার পিছনে পিছনে থেকেছে, তার কারণ বরাবরই জনস্বাস্থ্যবিদদের পরামর্শ ইগনোর করেছে। বর্তমানের এই নাজুক পরিস্থিতিতে একই আচরণ করছে। বোঝায় যাচ্ছে, সংক্রমণ পরিস্থিতি ক্রমশই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। শুধুই দোষারোপ করে চলেছি, জনগণ স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা, সেটা বুঝেও তার বিকল্প কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছিনা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রস্তাবনাকে পাশ কাটিয়ে ...
মার্কস-এঙ্গেলস, শ্রেণী স্বকীয়তা ও শ্রমিকশ্রেণীর একটি ‘স্বর্গাভিযানের’ প্রসঙ্গ
বিপ্লবীদের কথা, মতামত

মার্কস-এঙ্গেলস, শ্রেণী স্বকীয়তা ও শ্রমিকশ্রেণীর একটি ‘স্বর্গাভিযানের’ প্রসঙ্গ

(১৮৭১ সালে দুনিয়ার শ্রমজীবী-মেহনতি মানুষের প্রথম রাষ্ট্র ‘প্যারি কমিউনের’ বিশ্ব ঐতিহাসিক বিপ্লবী মর্ম ও তাৎপর্য অনুধাবন করতে যেয়ে ২০০২ এর মে মাসে এই নিবন্ধটি লেখেছিলেন সাইফুল হক , যা তখন সাপ্তাহিক নতুন কথাসহ আরো দুই/তিনটি ম্যাগাজিনে ছাপা হয়েছিল। লেখাটি তখন বিপ্লবী রাজনীতিমনস্ক ব্যক্তিবর্গ, অগ্রণী নেতা-কর্মী ও কিছু বিজ্ঞজনের মনযোগ আকর্ষণ করেছিল। নিবন্ধটি পরবর্তীতে সাইফুল হকের “মার্কস এঙ্গেলস ও ভাবাদর্শ” শীর্ষক গ্রন্থে সংকলিত হয়েছিল। এ বছর ‘প্যারি কমিউনের’ ১৫০তম বার্ষিকীতে অধিকারের পাঠকদের জন্য লেখাটি  প্রকাশ করা হলো।) মার্কসবাদের সাথে শ্রেণী প্রত্যয়টি ওতপ্রতভাবে জড়িত। বস্তুতঃ মার্কসবাদী মতাদর্শের মূলে রয়েছে শ্রেণী ও শ্রেণীসংগ্রাম এবং তার অনিবার্য পরিণতি সম্পর্কিত উপলব্ধি ও সূত্রায়ণসমূহ। এসব উপলব্ধি ও সূত্রায়নসমূহ ইতিমধ্যে নানাভাবে পরীক্ষিতও হয়েছে। শ্রেণী ও শ্রেণীসংগ্রাম যে মার্কসবাদের প্...
স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী- দেশের উল্টোযাত্রা
মতামত

স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী- দেশের উল্টোযাত্রা

সাইফুল হক :: এই জনপদের মানুষের কয়েক হাজার বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ১৯৭১ সালে দেশের স্বাধীনতার সংগ্রাম; মহান মুক্তিযুদ্ধ। স্বাধীনতা সংগ্রাম ছিল এদেশের আপামর জনগণের হার না মানা এক জনযুদ্ধ। আওয়ামী লীগ স্বাধীনতা সংগ্রামে রাজনৈতিক নেতৃত্ব প্রদান করলেও এই সংগ্রামে সকল বাম, প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক শক্তি ও শত ধরণের শ্রেণী ও গণসংগঠনের নেতা, কর্মী, সংগঠকেরা জীবনবাজি রেখে অংশগ্রহণ করেছেন এবং জনগণের ঐক্যবদ্ধ মরীয়া সংগ্রাম ও যৌথ নেতৃত্বে এই লড়াইয়ে তারা বিজয়ী হয়েছেন। মুষ্ঠিমেয় দালাল, বেঈমান ও বিভ্রান্তরা ছাড়া এই সংগ্রাম ছিল সাড়ে সাত কোটি মানুষের অস্তিত্ব, সম্মান ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার এক সর্বাত্মক যুদ্ধ। বিশাল আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে এদেশের মানুষ এই ঐতিহাসিক সংগ্রামে বিজয়ী হয়েছে; রাজনৈতিক স্বাধীনতা ও ভুখন্ড অর্জন করেছে। ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল প্রচারিত ‘স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে’ স্বাধী...
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি
মতামত

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি

রাজেকুজ্জামান রতন :: ১৯৭১ থেকে ২০২১ সাল। সময়ের হিসাবে ৫০ বছর। বাংলাদেশ পালন করছে সুবর্ণজয়ন্তী। এই ৫০ বছরে বাংলাদেশের অর্জন কম নয়। অনেকেই বলছেন বিস্ময়কর। যদি উন্নতির চিত্র দেখি তাহলে দেখব মাথাপিছু আয় ১১০ ডলার থেকে বেড়ে এখন ২০৬৪ ডলার, জিডিপি ৯ বিলিয়ন ডলার থেকে হয়েছে ৩৩৫ বিলিয়ন ডলার। খাদ্য উৎপাদন ১ কোটি ১০ লাখ টন থেকে বেড়ে ৫ কোটি টনে উন্নীত হয়েছে। অন্তত ১৩টি ক্ষেত্রে উৎপাদনে বাংলাদেশ বিশ্বে শীর্ষস্থানে আছে বলে তথ্যে জানা যায়। ধান উৎপাদনে চতুর্থ, ইলিশ মাছে প্রথম, তৈরি পোশাকে দ্বিতীয়, প্রবাসী আয়ে অষ্টম, সবজি উৎপাদনে তৃতীয়, আলুতে ষষ্ঠ, কাঁঠালে দ্বিতীয়, আমে অষ্টম, পেয়ারায় অষ্টম, পাটে দ্বিতীয়, মিঠাপানির মাছে তৃতীয়, ছাগল উৎপাদনে চতুর্থ আর ছাগলের দুধ উৎপাদনে দ্বিতীয়, আউটসোর্সিং-এ দ্বিতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ। এ ছাড়াও যমুনা সেতু, হাইওয়ে, ফ্লাইওভার এবং সর্বশেষ পদ্মা সেতু বাংলাদেশের অগ্রগতিকে দৃশ্যমা...
করোনা: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বনাম সরকারের নির্দেশনা
মতামত

করোনা: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বনাম সরকারের নির্দেশনা

আবু নাসের অনীক:: করোনা সংক্রমণের ‘ইমপোজড ওয়েভ’ শুরু হয়েছে দেশে। চলমান সংক্রমণের ওয়েভ যদি পর পর চার সপ্তাহ দেড়গুণ হারে বাড়ে, শনাক্তের হার ৫ শতাংশ থেকে বেড়ে ১০ শতাংশ বা তার উপরে পৌঁছায় সেই পরিস্থিতিকে ‘ইমপোজড ওয়েভ’ বলা হয়। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা: মুশতাক হোসেন বলেন,‘দেশে করোনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ছয় লাখ ছাড়িয়েছে মানে হলো, বিরতি ছাড়াই মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। আমরা যে গুরুতর জনস্বাস্থ্য পরিস্থিতির মধ্যে আছি, সেই বার্তাই দিচ্ছে এই সংখ্যা’। অনেকেই একে ‘সেকেন্ড ওয়েভ’ বলছেন। এটি সেকেন্ড ওয়েভ নয়। কারণ সেকেন্ড ওয়েভ তখন বলা যেতে পারে, যখন প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে চলে আসার পর আবারো নতুনভাবে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পায়। বাংলাদেশে প্রকৃত অর্থে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদন্ড অনুসারে করোনা সংক্রমণ কখনো নিয়ন্ত্রিত জায়গায় পৌঁছেনি। কিছু তথ্য বিশ্লেষণ করলেই সেটি বোঝা যাবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে,...