"> পরিবেশ বাঁচাতে মোদিকে পামেলার চিঠি
 

পরিবেশ বাঁচাতে মোদিকে পামেলার চিঠি

Pronob paul 2:07 pm শিল্প ও সাহিত্য,
Home  »  শিল্প ও সাহিত্য   »   পরিবেশ বাঁচাতে মোদিকে পামেলার চিঠি

অধিকার ডেস্ক :: ভারতের রাজধানী দিল্লির বায়ুদূষণ নিয়ে সাধারণ মানুষের মতো উদ্বিগ্ন তারকারাও। শুধু বলিউড নয়, হলিউড তারকারাও চিন্তিত এই আবহাওয়া নিয়ে। এবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়ে আলোচানায় এসেছেন ‘বেওয়াচ’ খ্যাত অভিনেত্রী পামেলা অ্যান্ডারসন। পরিবেশ বাঁচাতে সরকারের সব আলোচনাসভা ও অনুষ্ঠানে কেবল নিরামিষ খাবার পরিবেশনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজএইটটিনের প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

এ ছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনের উদ্বেগ জানিয়ে পামেলা বলেন, ‘দিল্লির মারাত্মক বায়ুদূষণে আক্রান্তদের জন্য মনটা খারাপ। শহরটির বাসিন্দাদের মতো প্রাণীদের নিয়ে দুশ্চিন্তা হচ্ছে, যারা মুখোশ পরতে কিংবা ভেতরে থাকতে পারে না।’

প্রাণী অধিকার সুরক্ষার সংগঠন পেটার (পিপল ফর দ্য এথিক্যাল ট্রিটমেন্ট অব অ্যানিমেলস) সাম্মানিক পরিচালক পামেলা। গত শুক্রবার পাঠানো চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, মানুষের মাধ্যমে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমনের ২০ শতাংশই দুগ্ধ, মাংস ও ডিমের জন্য পশুপালন দায়ী।

পামেলা লিখেছেন, ‘ভারতের উদ্ভাবন ও কৃষির ইতিহাস বলছে, দেশটিতে উৎপাদিত সয়া ও অন্যান্য বৈচিত্র্যময় খাবার সহজেই এসব ক্ষতিকারক খাবারের বিকল্প হতে পারে।’

ভারত নিরামিষভোজী হওয়ার সবচেয়ে সহজ জায়গা মনে করেন পামেলা। দেশটিতে রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এর অতিথি হয়ে এসেছিলেন। সেই স্মৃতি রোমন্থন করে তার মন্তব্য, ‘এখনও জাফরান ভাতের সুন্দর রঙ ও ভেজিটেবলস বিরিয়ানির লোভনীয় সুঘ্রাণের কথা মনে পড়ে। ভারতীয় এসব খাবার এক কথায় চমৎকার।’

পামেলা অ্যান্ডারসন ও নরেন্দ্র মোদি নিরামিষের পক্ষে নিউজিল্যান্ড, চীন ও জার্মানির পদক্ষেপের উদাহরণ টেনে পামেলা বলেন, ‘আপনার কাছে আবেদন জানাই, ভারত সমান উদ্যোগ নিতে ও তাদের সেরাটা করতে পারে।’

‘বেওয়াচ’ তারকা মনে করিয়ে দিয়েছেন, পরিবেশের সুরক্ষায় গোটা বিশ্বকে নিরামিষ খাবার গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছে জাতিসংঘ।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, সম্পূর্ণ নিরামিষ খাবার খাওয়ার ফলে প্রাণীরা কসাইখানায় বেদনাদায়ক মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা তো পায়ই, একইসঙ্গে মাংস ও দুগ্ধ গ্রহণের কারণে ডায়াবেটিস, কোলন ও স্তন ক্যান্সার এবং হৃৎপিণ্ডে সৃষ্ট রোগের চিকিৎসা ব্যয় হ্রাস হয়।

কয়েক বছর ধরে নিরামিষের জয়গান গাইছেন পামেলা। প্রাণীদের ব্যবহার করে বানানো পণ্য ও খাবার এড়িয়ে চলতে পেটার প্রচারণায় সক্রিয় ভূমিকা দেখা যায় তার।