"> ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা : ৮ ঘণ্টা পর রেল যোগাযোগ শুরু
 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা : ৮ ঘণ্টা পর রেল যোগাযোগ শুরু

Pronob paul 10:32 am ব্রেকিং নিউজ,
Home  »  জাতীয়জাতীয়ব্রেকিং নিউজ   »   ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনা : ৮ ঘণ্টা পর রেল যোগাযোগ শুরু

অধিকার ডেস্ক :: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনার ৮ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফের চট্টগ্রামের সাথে সারাদেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সকাল ১১টার দিকে রেল যোগাযোগ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কান্তি দাস। রিলিফ ট্রেন গিয়ে দুর্ঘটনাকবলিত বগিগুলো সরিয়ে নেয়ার পরই রেল যোগাযোগ শুরু হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) ভোর সাড়ে তিনটার দিকে সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী ও চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় বন্ধ হয়ে যায় ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রামের রেল যোগাযোগ। এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এছাড়া গুরুতর আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।

রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক নাসির উদ্দিন আহমেদ জানান, দুর্ঘটনার পর ক্ষতিগ্রস্ত বগিসমূহ সরিয়ে লাইন মেরামতের পর চট্টগ্রামের সাথে সারাদেশের রেল যোগাযোগ শুরু হয়েছে। চট্টগ্রাম থেকে সিলেটগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ছাড়া অন্যান্য ট্রেন নির্ধারিত সময়ে ছেড়ে গেছে। সকাল ৯টায় নির্ধারিত সিলেটগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল সোয়া ১১টার দিকে সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক তানহারুল ইসলাম বলেন, ১৬ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ১০ জনের মৃতদেহ ওখানকার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে রয়েছে। তিনজনের মৃতদেহ কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, দুইজনের ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও একজনের কুমিল্লায় রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ভোরের দিকে উদ্ধারকাজ শেষ হয়ে গেছে। এখন আর সমস্যা নেই । বেলা সোয়া এগারোটার দিকে রেল চলাচল শুরু হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১১ নভেম্বর) ভোর পৌনে ৩টার দিকে উপজেলার মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনের ক্রসিংয়ে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও তূর্ণা নিশীথার মধ্যে এই দুর্ঘটনা ঘটে। উদয়ন এক্সপ্রেস সিলেট থেকে চট্টগ্রাম ও তূর্ণা নিশীথা চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা অভিমুখে ছিল। মন্দভাগ রেল স্টেশনের কাছে ট্রেন দুটির মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে দুটি ট্রেনেরই বেশ কয়েকটি করে বগি দুমড়ে মুচড়ে যায়।

এতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি ও রেলওয়ে থেকে দু’টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে এসব তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রেল সচিব মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেন।