"> নাইমকে দু’জন সাপোর্ট দিলেই হয়ে যেত : প্রধান নির্বাচক
 

নাইমকে দু’জন সাপোর্ট দিলেই হয়ে যেত : প্রধান নির্বাচক

Pronob paul 1:45 pm খেলা,
Home  »  ক্রিকেটখেলা   »   নাইমকে দু’জন সাপোর্ট দিলেই হয়ে যেত : প্রধান নির্বাচক

অধিকার ডেস্ক :: সমালোচকরা ফোড়ন কাটছেন, দিল্লিতে টার্গেট ছিল ছোট; মাত্র ১৪৯ রানের। তাই তা টপকে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। কিন্তু গতকাল রোববার রাতে রিয়াদ, লিটন, সৌম্য, নাইম, মুশফিক এবং আফিফদের লক্ষ্য ছিল ১৭৫ রান। সে কারণে পারেনি বাংলাদেশ।

সে কথা ও যুক্তি ধোপে টিকবে না। কারণ, সে ম্যাচে মাত্র অভিষেক ঘটা নাইম শেখ, সঙ্গে সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহীম আর অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একদম হিসেব কষে ব্যাট করেছেন। প্রথম উইকেটে বড় সড় জুটি গড়ে না উঠলেও দ্বিতীয় উইকেটে ৪৬ আর তৃতীয় উইকেটে ৬০ রানের দু’দুটি কার্যকর জুটি গড়ে উঠেছিল।

রোববার ঠিক সেই কাজটিই হয়নি। হয়নি বললে ভুল বলা হবে। হয়েছে। শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে ১২ রানে ২ উইকেট পতনের পর তরুণ নাইম শেখ আর মোহাম্মদ মিঠুন ৯৮ রানের বিরাট জুটি গড়ে জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেছিলেন। যেখানে মিঠুনের অবদান মোটে ২৭ (২৯ বলে)।

কিন্তু এরপর আর একটি জুটিও গড়ে ওঠেনি। কোন পার্টনারশিপে ২০ রানও ওঠেনি। সেখানেই ম্যাচ হাতছাড়া হয়ে যায়। আর একটি ৩০-৪০ রানের পার্টনারশিপ গড়ে উঠলেই হয়তো হয়ে যেত। তরুণ নাইম আগের দুই ম্যাচে যথাক্রমে ২৬ ও ৩৬ রান করার পর ক্যারিয়ারের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে প্রথম হাফ সেঞ্চুরির পাশাপাশি অসাধারণ ব্যাটিং করে আশির ঘরে পৌঁছে গিয়েছিলেন এ বাঁ-হাতি ওপেনার। বুক ভরা সাহস ও আস্থায় ভারতীয় বোলার ও ফিল্ডারদের ব্যতিব্যস্ত রেখেছেন। ম্যাচে বাংলাদেশের সম্ভাবনার বীজও রোপন করে দিয়েছিলেন ২০ বছরের এ আক্রমণাত্মক ওপেনার।

তরুণ নাইমের প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বাকি ব্যাটসম্যানদের ওপর বেজায় চটেছে। তার কথা, ‘নাইম এক্সিলেন্ট খেলেছে। তার ব্যাটে ছিল জয়ের আভাস; কিন্তু বাকিরা সেই দুর্দান্ত ব্যাটিং শৈলি কাজে লাগিয়ে, তাকে সাহায্য করে দলকে যে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেবে- সেই বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাটিংটাই হয়নি।’

তাই প্রধান নির্বাচক ব্যাটিংকেই পরাজয়ের কারণ বলে চিহ্নিত করেছেন। তার কথা ব্যাটিংটাই ডুবিয়েছে। ওই উইকেটে ১৭৫ আহামরি বড় ও কঠিন টার্গেট ছিল না। ভারতীয়দের বোলিংও এমন কোন দূর্বোধ্য ছিল না। নান্নু মনে করেন, একটু চিন্তা-ভাবনা করে খেললেই হয়ে যেত।

রোববারের ম্যাচের পোস্ট মর্টেম করতে গিয়ে তাই তার মুখে এমন কথা, ‘আমি কাউকে বা কোন বিশেষ ডিপার্টমেন্টকে দুষবো। কারো ওপর দায় চাপানোরও প্রশ্নই আসে না, তবে খুব বেশি খুঁটিয়ে দেখার দরকার নেই। আমরা ব্যাটিং দুর্বলতার কারণেই কাল নাগপুরে জিততে পারিনি।’

নান্নুর ধারনা, ব্যাটসম্যানদের প্ল্যানিংয়ে ঘাটতি ছিল। তার ব্যাখ্যা, সে অর্থে কেউ প্ল্যান করে খেলেনি। নাইম একদিকে অসাধারণ খেলেছে। অন্যদিকে তার মত না, দু’জন ব্যাটসম্যান শুধু সাপোর্ট দিতে পারলেই চলতো। আপনা-আপনি ম্যাচ আমাদের হাতের মুঠোয় চলে আসতো।

কিন্তু কেউই সেই সাপোর্ট দেয়ার কাজটি করতে পারলো না। সে চেষ্টাও ছিল না। নাইম একদিকে চালিয়ে যাচ্ছে। রান উঠছে। অন্য প্রান্তে কেউ একজন তাকে সঙ্গ দিলেই হয়ে যাবে। এমন বোধ- উপলব্ধি আর চিন্তাটাও দেখা গেল না। শেষের কথাগুলো একটু আক্ষেপের সুরেই বললেন প্রধান নির্বাচক।