রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৮
শীর্ষ সংবাদ

ট্রাম্প তালেবানের সঙ্গে শান্তি আলোচনা বাতিল করেছেন

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) সিরিজ টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছেন, তালেবানের সঙ্গে সকল ধরনের শান্তি আলোচনা তিনি বাতিল করেছেন। খবর বিবিসির।

এর আগে, তালেবানের সঙ্গে চলতে থাকা দীর্ঘ শান্তি আলোচনার অংশ হিসেবে রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) ক্যাম্প ডেভিডে তালেবানের শীর্ষ নেতৃত্বের সাথে বৈঠকে বসার কথা ডোনাল্ড ট্রাম্পের।

কিন্তু, তালেবানের হামলায় কাবুলে এক মার্কিন সৈন্যের মৃত্যুর পর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদের সঙ্গে সকল ধরনের শান্তি প্রক্রিয়ার আলোচনা বাতিল ঘোষণা করেন।

এই শান্তি আলোচনার মার্কিন সূত্রধর জালমে খালিলাজাদ সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) জানিয়েছিলেন তালেবানের সঙ্গে শান্তি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে ২০ সপ্তাহের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে ৫,৪০০ সৈন্য ফিরিয়ে নেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আফগানিস্তানে বর্তমানে ১৪ হাজার মার্কিন সৈন্য রয়েছে। তবে তিনি অবশ্য বারবার স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন, এ ব্যাপারে প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।

সেই ঘোষণার এক সপ্তাহের মাথায় প্রেসিডেন্ট জানালেন, তালেবানের সাথে কোনও ধরনের শান্তি প্রক্রিয়ায় তিনি আগ্রহী নন।

ইতোমধ্যেই তালেবানের সঙ্গে নয় দফা বৈঠকে কাতারে মিলিত হয়েছেন মার্কিন সূত্রধর জালমে খালিলাজাদ। দ্বি পাক্ষিক ঐ সকল বৈঠকে আফগান সরকারের কোন প্রতিনিধি উপস্থিত থাকতেন না। কারণ, মার্কিন পুতুল আখ্যা দিয়ে তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনায় বসতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে তালেবান।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) কাবুলে এক গাড়িবোমা হামলায় ১২ জন মারা যায়। যাদের মধ্যে একজন মার্কিন সৈন্যও রয়েছেন। এছাড়াও একজন রোমানিয়ান ন্যাটো সৈন্যও এই হামলায় মারা গেছেন।

এই মৃত্যুর জের ধরেই তালেবানের সঙ্গে সকল ধরনের শান্তি আলোচনা বাতিল ঘোষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

উল্লেখ করা যায় যে, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবান শাসনামলে আফগানিস্তানকে কঠোর ধর্মীয় আইন এবং নারীর জন্য বর্বর এক জনপদে পরিণত করেছিল।

২০০১ সাল থেকে আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক জোটের প্রায় ৩৫০০ সৈন্য তালেবানের হামলায় মারা গিয়েছেন। যাঁদের মধ্যে ২৩০০ সোইন্য আমেরিকার। বেসামরিক জনগণের প্রাণহানির হিসাব আরও বিশাল। জাতিসংঘের এক হিসাব অনুযায়ী ২০০১ সাল থেকে উভয় পক্ষের হামলায় প্রায় ৩২ হাজার বেসামরিক জনগণের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াটসন ইন্সটিটিউটের এক হিসাব অনুযায়ী ২০০১ সাল থেকে অদ্যাবধি নিরাপত্তা বাহিনীর ৫৮ হাজার সদস্য এবং তালেবানের ৪২ হাজার সৈন্যর মৃত্যু হয়েছে।


এখানে শেয়ার বোতাম