শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৭
শীর্ষ সংবাদ

কুষ্টিয়াতে ছাত্র ফ্রন্টের নেতাকর্মীদের অগণতান্ত্রিক বাধা ও আটকের তীব্র নিন্দা জানিয়েন কমরেড খালেকুজ্জামান

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান আজ শনিবার (০১ সেপ্টেম্বর) সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে ছাত্র ফ্রন্ট নেতা-কর্মীদের প্রচার কাজে বাধা ও গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি করেন।

উল্লেখ্য, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলনের প্রচারণার জন্য আজ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখ সকালে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ শাখার নেতাকর্মীরা শিক্ষার্থীদের মধ্যে লিফলেট ও ফোল্ডার বিলি করার সময় কলেজ শাখা ছাত্রলীগ তাদের বাধা প্রদান করে এবং তাদেরকে প্রিন্সিপালের অফিসে নিয়ে গিয়ে একটি রুমে তালাবদ্ধ করে রেখে দেয়। এই সময় ছাত্র ফ্রন্টের নেতাকর্মীরা প্রিন্সিপালের সাথে কথা বলতে চাইলে তাদেরকে বলতে দেয়া হয়নি। এবং পরবর্তীতে দুপুর বেলা ছাত্রলীগ এবং কলেজ প্রিন্সিপাল মিলে পুলিশকে ফোন দিয়ে ছাত্র ফ্রন্ট কুষ্টিয়া জেলা শাখার আহ্বায়ক লাবনী সুলতানা, কলেজ শাখা ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি তাসমিন নাহার, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ ও দপ্তর সম্পাদক প্রশান্ত রায় অভিকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

এই ধরণের অগণতান্ত্রিক বাধা ও আটকের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ঠিক যে সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, দখলদারিত্ব থেকে শুরু করে মাদকের সিন্ডিকেট এবং প্রতিটি জায়গায় যখন ছাত্রলীগের সর্বোচ্চ থেকে সর্বনিম্ন নেতাকর্মীদের জড়িত থাকার ঘটনা দেশবাসীর কাছে ফাঁস হয়ে যাচ্ছে, সেই সময় লিফলেট ফোল্ডার বিলি করার মত একটি কাজও সহ্য করতে পারছেন না তারা। তারা ভীত হয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে পুলিশ ডেকে ছাত্রনেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করিয়েছে।’
বিবৃতিতে তিনি অবিলম্বে আটককৃত কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ ছাত্র ফ্রন্ট নেতৃবৃন্দের মুক্তি, হামলার সাথে জড়িত সকলের বিচার এবং এই ঘটনায় দায়ী কলেজ অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবি জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম