বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩

‌’নতুন পরিবহন আইনের উদ্দেশ্য জরিমানা নয়, সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা’ গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: নতুন সড়ক পরিবহন আইনে রাস্তায় নিয়ম ভঙে জরিমানা বেড়েছে ১০ থেকে হাজার গুণ। বেড়েছে কারাদণ্ড। পরিবহন মালিক-চালকদের শুধু জেল জরিমানা করা নয়, আইনের উদ্দেশ্য সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা।

সরকারের মন্ত্রী, নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ সংস্থা এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এ কথা বললেও, পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতাদের দাবি, শাস্তি দিয়ে সড়কে স্বস্তি আসবে না। আইন অনেক কঠোর, আবার ত্রুটিও রয়েছে।

রোববার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সমকাল কার্যালয়ে ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদের করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় এমন পাল্টাপাল্টি বক্তব্য এসেছে। এসিআই মোটরস এর সহযোগিতায় সমকাল ও নিরাপদ সড়ক চাই’র (নিসচা) আয়োজনে এ গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন। সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফির সঞ্চলনায় গোলটেবিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, নিসচা চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন, হাইওয়ে পুলিশের প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান, সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. কামরুল আহসান, সাবেক চেয়ারম্যান আইয়ুবুর রহমান, ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দীন আহম্মেদ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী, ঢাকা মহানগর পুলিশের উত্তর ট্রাফিকের উপ-কমিশনার প্রবীর কুমার রায়, ট্রাক কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মজুমদার, সড়ক দুর্ঘটনায় প্রয়াত সাংবাদিক মিশুক মুনীরের স্ত্রী মঞ্জুলী কাজী, এসিআই মোটরস এর বিজনেস ম্যানেজার রবিউল হক। ধন্যবাদ বক্তব্য দেন নিসচা’র মহাসচিব সৈয়দ এহসানুল হক কামাল।


এখানে শেয়ার বোতাম