সোমবার, জানুয়ারি ১৮

২৫টি সরকারি পাটকল ব্যক্তি মালিকানায় দেয়ার প্রতিবাদে রংপুরে সমাবেশ

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 190
    Shares

রংপুর প্রতিনিধি:: ২৫টি সরকারি পাটকল পিপিপি’র নামে ব্যক্তি মালিকানায় দেয়ার প্রতিবাদে বাম গণতান্ত্রিক জোট কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রংপুর জেলার উদ্যোগে সকাল ১১টায় স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন-সমাবেশ করে।

বাসদ জেলা সদস্যসচিব কমরেড মমিনুল ইসলামের পরিচালনায় সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ জেলা আহবায়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুস।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবি জেলা সভাপতি আফজালুর রহমান, বাসদ( মার্ক্সবাদী) নেতা আহসানুল আরেফিন তিতু, উদীচী রংপুর জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক কাফি সরকার, উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও কৃষক সমিতির জেলা সভাপতি শাহাদত হোসেন, বাসদ(মার্ক্সবাদী) সমন্বয়ক আনোয়ার হোসেন, ক্ষেতমুজুর ও কৃষক ফ্রণ্টের জেলা সাধারণ সম্পাদক অমল সরকারসহ বাম প্রগতিশীল ছাত্র-শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ বলেন,পরিবেশ ধ্বংসকারী পলিথিন,প্লাস্টিক পণ্য বিশ্বব্যাপী প্রাণ-প্রকৃতির (মাটি,পানি,বায়ু) অপূরণীয় ক্ষতি করছে। ফলে পরিবেশ বান্ধব পাটজাত দ্রব্যের চাহিদা দেশে-বিদশে ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে।তখন পুঁজিবাদী মুনাফাখোরদের স্বার্থে ২৫টি সরকারি পাটকল লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে সরকার বন্ধ করে দিল।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কথায় কথায় তাঁর পিতার স্বপ্ন বা বঙ্গবন্ধুর চেতনা বাস্তবায়নের কথা বলেন।অথচ ৭৮টি পাটকল তৎকালীন সরকার জাতীয়করণ করেছিল। এখন দেশীয় লুটেরাদের স্বার্থে,ভারতসহ সাম্রাজ্যবাদীদের স্বার্থ রক্ষার জন্য প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে ৫০ হাজার শ্রমিক কর্মচ্যুত হলো,৪০ লক্ষ পাটচাষী,নানাভাবে যুক্ত আরো ৪ কোটি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হলো।১২০০ কোটি টাকা হলে পাটকল আধুনিকায়ন করে উৎপাদন ২/৩ গুন বৃদ্ধি করে লাভজনক করা যেত। সরকার তা না করে ৫০০০ কোটি টাকা দিয়ে শ্রমিকদের গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের ফাঁদে ফেললো।

পুরাতন যন্ত্রপাতি,মাথাভাড়ি প্রশাসন,ভুলনীতি,দুর্নীতি, দলবাজি ইত্যাদির কারণে মূলত পাটকল গুলো লোকসানে পরিণত হয়ছে।
গোটা ইউরোপসহ বহু দেশে পলিথিন-প্লাস্টিক নিষিদ্ধ করে বিশ্বব্যাপী পরিবেশ বান্ধব পাটজাত পণ্যের চাহিদা ক্রমাগত যখন বৃদ্ধি পাচ্ছে, তখন সরকারের এহেন সিদ্ধান্ত চূড়ান্তভাবে জনস্বার্থ বিরোধী বলে নেতৃবৃন্দ বলেন।সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে গত ঈদে যেভাবে গরু-মহিষের চামড়া পানির দরে কিংবা মাটিতে পুতে ফেলতে হয়েছে, একই কায়দায় কৃষককে জিম্মি করে পাটকল গুলো সরকার ব্যক্তমালিকানায় দিয়ে লুটেরাদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।বক্তাগণ অবিলম্বে সরকারি পাটকল আধুনিকায়ন,দুর্নীতি -লুটপাট বন্ধ,সরকারি-বেসরকারি নির্বিশেষে নিম্নতম জাতীয় মজুরি নির্ধারণের দাবি জানান।

এ ছাড়া গত ১০ বছরে ৬ লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার,ব্যাংক-বীমা,শেয়ার বাজারে লুটের টাকা উদ্ধার,সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালতে অনিয়ম, ঘুষ- দুর্নীতি বন্ধের দাবিও জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 190
    Shares