শনিবার, মার্চ ৬
শীর্ষ সংবাদ

১১তম গ্রেডে বেতনের দাবিতে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের সমাবেশ

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন উন্নীতকরণের দাবিতে সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোট।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) দেশের সাত বিভাগে একযোগে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে ঢাকা বিভাগের সমাবেশ আজ জাতীয় প্রেসক্লাবেরর সামনে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি জনাব শাহিনুর আল-আমীন। খুলনা বিভাগেরর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় শহীদ হাদিস পার্কে, সভাপতিত্ব করেন মনির হোসেন। চট্টগাম বিভাগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় চট্রগ্রাম প্রেসক্লাবে, সভাপতিত্ব করেন নাজিম উদ্দিন। রংপুর বিভাগেরর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় রংপুর টাউন হলে, সভাপতিত্ব করেন আজিজার রহমান মিল্টন। সিলেট বিভাগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে, সভাপতিত্ব করেন এনামুল কবির। বরিশাল বিভাগেরর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় অস্বিণী কুমার হলে, সভাপতিত্ব করেন জহিরুল ইসলাম জাফর।

শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশের প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকগণ বেতন বৈষম্য দূরীকরণের জন্য দীর্ঘ ৫ বছর ধরে ১১তম গ্রেডের জন্য আন্দোলন করে আসছে। তৎকালীন মন্ত্রী অ্যাড. মুস্তাফিজুর রহমান শিক্ষকদের দাবি মেনে নিবেন বলে আশ্বস্ত করেছিলেন। পরবর্তীতে দাবিটি বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইস্তেহারেও সংযুক্ত করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভয়েস কলের মাধ্যমে সকল শিক্ষককে আশ্বস্ত করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আমাদের দীর্ঘ আন্দোলনের পর মাননীয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও সচিব মহোদয় বেতন বৈষম্য নিরসনের জন্য গ্রেড পরিবর্তনের প্রস্তাবনা গত ২৯ জুলাই অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেন। আমাদের যৌক্তিক দাবি ১১তম স্কেলে বেতন নির্ধারণ। কিন্তু প্রস্তাব করা হয়েছিল ১২তম। যা বাংলাদেশের কোন সহকারী শিক্ষক মেনে নেয়নি। এত কিছুর পরও গত ৮/৯/২০১৯ইং অর্থমন্ত্রণালয় একটি চিঠির মাধ্যমে জানান, “শিক্ষকদের বেতন গ্রেড যথাযথ ও সঠিক থাকায় গ্রেড উন্নীত করণের সুযোগ নেই।”

শাহিনুর আল-আমীন বলেন, আমরা অর্থমন্ত্রণালয়ের এহেণ দুঃসাহসিক জবাবকে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি।

তিনি বলেন, যেখানে প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং ভয়েস কলের মাধ্যমে বেতন বৈষম্য নিরসনের কথা বলেছেন এবং সরকারের নির্বাচনী ইস্তেহারে সহকারীদের বেতন বৈষম্য নিরসনের কথা রয়েছে, সেখানে অর্থমন্ত্রণালয়ের কতটা দুঃসাহস যে তারা এটাকে নাকচ করে।

বিভিন্ন বিভাগের সমাবেশে বক্তারা দাবি জানান ১১তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণ এবং সেটা ৯/০৩/২০১৪ সাল থেকে বাস্তবায়ন করতে হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম