সোমবার, নভেম্বর ৩০

হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী : শরীর হিম হয়ে যাওয়া সেই খবর

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 8
    Shares

আল আজাদ ::

তখন রাত আনুমানিক এগারোটা। কাজ শেষ করে অফিস থেকে বের হয়ে সবে রিক্সায় চড়েছি। রাজা ম্যানশন চত্বর ছেড়ে জিন্দাবাজার চৌমুহনার কাছাকাছি পৌঁছতেই হাতের মোবাইল ফোনটি বেজে উঠলো। ‘হ্যালো’ বলতেই অপর প্রান্ত থেকে ভেসে এলো ঢাকার সাংবাদিক বন্ধু একুশে টেলিভিশনের সোহেল মাহমুদের দরাজ কন্ঠ। বরাবরের মতো ভালমন্দ জিজ্ঞেস করতে শুরু করলাম; কিন্তু তিনি এসবের ধারে কাছে গেলেন না। তার কথাবার্তায় প্রকাশ পেলো ভিন্ন রকম সুর। এক ধরনের উদ্বেগ-উৎকন্ঠা। তাকে এ নিয়ে প্রশ্ন করার বিন্দুমাত্র সুযোগ মিললোনা। এর আগেই নিজের থেকে বলে উঠলেন, ‘সম্ভবতঃ স্পিকার সাহেব মারা গেছেন। বিস্তারিত খবর পাইনি। সিলেটে খোঁজ নিয়ে নিশ্চিত হোন।’

আঁতকে উঠলাম। পুরো শরীর হিম হয়ে গেলো। অনেকটা কিংবর্তব্যবিমূঢ়। পাশে বসা ছড়াশিল্পী আনিস রহমান। ব্যাপারটি আঁচ করতে পেরে কথা বলে উঠলো। জানতে চাইলো, কিভাবে মারা গেলেন। বলতে থাকলো ‘বড় ভাল মানুষ ছিলেন হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী। সিলেটের জন্যে কত কিছু করেছেন।’

সম্বিৎ ফিরে পেলাম কথাগুলো কানে যেতেই; কিন্তু কি করবো ভেবে পাচ্ছিলাম না। এখন অফিসে ফিরে গিয়ে যোগাযোগ করতে গেলে দেরি হয়ে যাবে। যা করার মোবাইলেই করতে হবে। মনে পড়ে গেলো, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি মুকতাবিস-উন-নূরের কথা। তিনি টিএন্ডটি ফোনের কাছে থাকতে পারেন। সহজেই পেয়ে গেলাম তাকে। তার কাছে খবরটি দিতেই মনে হলো, প্রচন্ড ধাক্কা খেলেন, যা ছিল খুবই স্বাভাবিক। বললাম, ‘পথে আছি। বাসায় গিয়ে ঢাকার যোগাযোগ করবো। এর আগে বিষয়টির সত্যতা যাচাই করুন।’ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ ন ম শফিকুল হককে ফোন করলাম; কিন্তু সংযোগ পেলাম না।

কয়েক মিনিটের মধ্যেই বাসায় ফিরলাম; কিন্তু ঘরের ভেতর পা রাখতেই চলে গেলো বিদ্যুৎ। ইতোমধ্যে সহধর্মিনী দীপা নাহার মুর্শেদার কানে পৌঁছে গেছে শোক সংবাদটি। একেতো তিনি হৃদরোগী তার উপর হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর অনুরাগী। মোমবাতির আলোয় তাকে দেখেই মনে হলো, মানসিকভাবে বেশ ভেঙ্গে পড়েছেন।

একের পর এক ডায়াল ঘুরাতে থাকলাম দৈনিক সিলেটের ডাক, জালালাবাদ ও যুগভেরী’তে। সবাই ব্যস্ত। অত:পর বাংলাদেশ টেলিভিশন প্রতিনিধি আজিজ আহমদ সেলিমকে পেলাম বাসায়। জানালেন, খবরটি পেয়েছেন। তবে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে পারছেন না।

এরপর যুগভেরী’র টেবিল থেকে সাংবাদিক আব্দুর রাজ্জাক রাজাও জানালেন একই কথা। মোবাইলে ঢাকায় আ স ম হোসাইনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলাম; কিন্তু সংযোগ পেলাম না। দৈনিক সংবাদ-এর ফোনও বারবার ব্যস্ত পাচ্ছিলাম। শেষপর্যন্ত সিলেটের ডাক-এর নির্বাহী সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকীর সাথে আলাপ করে পুরোপুরি নিশ্চিত হলাম, বাংলাদেশের মেয়াদ পূরণে প্রথম কৃতিত্বের দাবিদার সপ্তম জাতীয় সংসদের সফল স্পিকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা কূটনীতিক ও সিলেটবাসীর স্বপ্ন পূরণের প্রাণ পুরুষ হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী সত্যি সত্যি আর নেই।

লেখক : সিনিয়র সাংবাদিক


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 8
    Shares