মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৯

হাসপাতাল ছাড়লেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে হাসপাতালে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর বাসায় ফিরেছেন বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর নিয়মিত পরীক্ষার কথা বলা হলেও দেশটিতে তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে নানা ধরনের গুঞ্জন দেখা গেছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশটির একটি ইংরেজি সাপ্তাহিক পত্রিকায় বলা হয়, গত জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে তার কার্যালয়ে রক্তবমি করেছেন। এই পত্রিকার সংবাদ প্রকাশের পর দেশটিতে প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা নিয়ে তীব্র উদ্বেগ দেখা দেয়।

এর মাঝেই সোমবার সকালের দিকে গত দুই মাসের মধ্যে প্রথমবারের মতো কিয়েইও ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে যান প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে। প্রায় সাড়ে সাত ঘণ্টা অবস্থান করার পর তিনি হাসপাতাল ছাড়েন বলে জাপানের সরকারি সংবাদসংস্থা কিয়োডো নিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

তবে জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন দেশটির সরকারের শীর্ষ এক মুখপাত্র। লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সরকারের প্রধান কর কর্মকর্তা আকিরা আমারি প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। রোববার এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কিছুটা বিশ্রাম প্রয়োজন।

তবে শিনজো অ্যাবের শারীরিক অবস্থার অবনতির বিষয়টি অস্বীকার করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি সূত্র। তিনি বলেছেন, নিশ্চিত হওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রতঙ্গ পরীক্ষা করা হচ্ছে। পরীক্ষার জন্য তিনি একটি পুরোদিন পেয়েছেন।

তবে পৃথক একটি সূত্র বলছে, করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলা করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে নিজের যত্ন নেয়ার মতো পর্যাপ্ত সময় পাননি। দীর্ঘদিন ধরে টানা কাজের ধকলে তিনি কিছুটা ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন।

এদিকে, এই মহামারীতে দ্রুত গতিতে সংকুচিত হয়েছে জাপানের অর্থনীতি। চলতি বছরের এপ্রিল-জুনে আগের প্রান্তিকের চেয়ে দেশটিতে মোট দেশজ উৎপাদন ৭.৮ শতাংশ হারে কমেছে। যা আগের বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ২৭ দশমিক ৮ শতাংশ কম।

চীন থেকে শুরু হওয়া এই মহামারীর আগে থেকেই বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ জাপান অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি নিম্নগতির সঙ্গে লড়াই করে আসছিল। করোনাভাইরাস মহামারি সেই লড়াইকে আরও জোরাল করে তুলছে।


এখানে শেয়ার বোতাম