মঙ্গলবার, মার্চ ৯
শীর্ষ সংবাদ

হকারদের পেটে লাথি না মেরে ক্যাসিনো হোতাদের গ্রেফতার করুন : মনজুরুল আহসান খান

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: পুনর্বাসন ছাড়া হকার উচ্ছেদ বন্ধ, হকার ব্যবস্থাপনার জাতীয় নীতিমালা প্রণয়ন ও পুরান ঢাকার উচ্ছেদকৃত ১০ হাজার হকারকে পুনর্বহাল করার দাবিতে এক সমাবেশে শ্রমিকনেতা বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান খান বলেন, হকারদের পেটে লাথি না মেরে ক্যাসিনো হোতাদের গ্রেফতার করুন।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) সকাল ১১টায় ভিক্টোরিয়া পার্কের সামনে বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের উদ্যোগে এই বিক্ষোভ-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা মনজুরুল আহসান খান বলেন, হকারদের পেটে লাথি না মেরে ক্যাসিনো হোতাদের গ্রেফতার করুন যারা হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করছে, মদ-জুয়া খেলছে, বিদেশে টাকা পাচার করছে।

তিনি বলেন, এমনিতেই ছাত্রলীগ- যুবলীগ ও পুলিশের যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ হকাররা। যখন ঢাকা শহরের কোথাও কোথাও হকার ছিল না তখন পুরান ঢাকায় হকার ছিল তাই হকারদের উপর জুলুম-নির্যাতন না করে অবিলম্বে তাদের বসতে দিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে বাঁচার ব্যবস্থা করতে সিটি কর্পোরেশন ও পুলিশ প্রশাসনকে অনুরোধ করেন তিনি।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, হকাররা দীর্ঘ ৩০-৪০ বছর ধরে ফুটপাতে ব্যবসা পরিচালনা করে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে। কোনো কারণ ছাড়াই তাদের উচ্ছেদ, পুলিশের জুলুম-অত্যাচার কোনোভাবেই মেনে নেবে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, রাজপথে লড়াই-সংগ্রাম করে জীবন দিবো তবু বিকল্প কর্মসংস্থান ছাড়া ফুটপাত ছাড়বে না।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, আমরা প্রথমে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান চেয়েছি পর্যায়ক্রমে ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর, স্থানীয় এমপি, উপ-পুলিশ কমিশনার সবার সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়েছি, আলোচনা করেছি। কিন্তু সবাই ভাল ভাল কথা বললেও প্রকৃতপক্ষে কোনো সমাধান হচ্ছে না। একজন আরেকজনের উপর দায় চাপাচ্ছেন অন্যদিকে হকাররা পরিবার-পরিজন নিয়ে অর্ধহারে-অনাহারে দিন কাটাচ্ছে।

সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ মিছিলটি সদরঘাট, কোটকাচারী হয়ে বংশাল রোডস্থ ডিসি অফিসের সামনে দু’ঘণ্টা অবস্থান করে এবং ডিসিকে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরবর্তীতে ডিসি সাহেব ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের সাথে বিষয়টি সমাধানের জন্য দীর্ঘ আলোচনায় মিলিত হন।

হকার্স ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল হাশিম কবীরের সভাপতিত্বে সমাবেশ বক্তব্য রাখেন হকার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা মো. ফিরোজ, মো. আরিফ, কোতয়ালী থানা কমিটির সভাপতি আব্দুল কাউয়ুম, সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান পাটোয়ারী, হকারনেতা মো. রবিন, মো. জাহাঙ্গীর, সামছুল হক মোড়ল, আবুল খায়ের প্রমুখ।


এখানে শেয়ার বোতাম