বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬

সিলেটে রীনা দেবীর বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা’ মামলা প্রত্যাহারের দাবি

এখানে শেয়ার বোতাম

সিলেট প্রতিনিধি :: বাংলাদেশ মণিপুরী মহিলা সমিতির সভাপতি রীনা দেবীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ‘মিথ্যা’ অপহরণ মামলা প্রত্যাহার ও অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

রোববার বেলা ১১টায় নগরীর শহীদ মিনারের সামনে সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা এবং মানবাধিকার সংগঠনের কর্মীরা এ কর্মসূচি পালন করে।

এ সময় বক্তারা বলেন, রীনা দেবী একজন প্রবীণ সমাজকর্মী ও মানবাধিকার কর্মী। মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে হয়রানির চেষ্টা করা হচ্ছে; যা অত্যন্ত দুঃখজনক। একদল ভূমিদস্যু আগেও উদ্দেশ্যমূলকভাবে রীনা দেবীকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করেছে। এতে তারা ক্ষুব্ধ এবং হতবাক বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা।

মনিপুরী যুব সমিতির সভাপতি ধীরেন সিংহের সভাপতিত্বে ও মানবাধিকার কর্মী সমেন্দ্র সিংহের পরিচালনায় প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী, ব্লাস্টের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট ইরফানুজ্জামান চৌধুরী, সিলেট প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরামুল কবির, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কীম, বাংলাদেশ মনিপুরী সাহিত্য সংসদের সভাপতি কবি একে শেরাম, শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক তাহমিনা ইসলাম, সিলেট ফটোগ্রাফিক সোসাইটির (এসপিএস) সাবেক সভাপতি আব্দুল মোনায়েম, বর্তমান সভাপতি ফরিদ আহমদ, বাংলাদেশ দলিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলনের উপদেষ্টা লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক লাবলু বড়ুয়া, মানবাধিকার কর্মী লক্ষিকান্ত সিংহ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রীনা দেবীর মৌরসী সম্পত্তি বিরাট অংশ ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা বেদখল করেছে। যেটুকু আছে সেটুকুও বেদখল করার অপতৎপরতা চালাচ্ছে চক্রটি। এ জন্য ভুয়া দলিল তৈরি, রীনা দেবীকে বিভিন্নভাবে হুমকিসহ প্রায় ২০ বছর ধরে বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। ২০১১ সালে রীনা দেবীসহ পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলার ঘটনাও ঘটেছে। এ সংক্রান্ত একাধিক মামলা আদালতে চলমান রয়েছে।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন- সিলেট বিভাগীয় ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মামুন হাসান, সাধারণ সম্পাদক শংকর দাস, টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সিলেটের সভাপতি দিগেন সিংহ, বাংলাদেশ মানবাধিকার সাংবাদিক কমিশনের কোষাধ্যক্ষ ইউসুফ আলী প্রমুখ।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার শেখ নূর মিয়া নামের এক ব্যক্তি তার ভাই অপহরণ হয়েছে অভিযোগে জামালপুর আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় রীনা দেবীকে তিন নম্বর আসামি করা হয়েছে। এতে অভিযোগ করা হয়েছে, নূর মিয়ার ভাই আব্দুল আহাদকে অপহরণ করে মুক্তিপন দাবি করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ তদন্ত করছে। এ মামলায় আগামী ১৫ জানুয়ারি জামালপুর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে উপস্থিত হওয়ার জন্য রীনা দেবীকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে।


এখানে শেয়ার বোতাম