বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩

সিপিবির ‘ধিক্কার দিবস’ পালন, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: স্বাস্থ্যখাতে লুটপাট-দুর্নীতি, করোনাকালে মানুষের জীবন নিয়ে ব্যবসার ঘৃণ্য তৎপরতার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী ‘ধিক্কার দিবস’ এর কর্মসূচি থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ, স্বাস্থ্য প্রশাসনের দুর্নীতিবাজ আমলাদের অপসারণ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লুটেরা ঠিকাদারদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার এবং স্বাস্থ্যখাতে লুটপাট-দুর্নীতি কঠোরভাবে বন্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

রোববার (২৬ জুলাই) ‘ধিক্কার দিবসে’ ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন পার্টির সহকারী সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাজ্জাদ জহির চন্দন। বক্তব্য রাখেন প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স। সভা পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ঢাকা কমিটির সম্পাদক কমরেড ডা. সাজেদুল হক রুবেল।

সমাবেশ থেকে নেতৃবৃন্দ বিনামূল্যে সারাদেশে মাস্ক বিতরণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নেতৃবৃন্দ করোনা পরীক্ষায় সরকারের অনীহায় তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, সরকার কম পরীক্ষা কম সংক্রমণ দেখানোর পথে হাটচ্ছে। যেখানে দেশবাসীর দাবি ছিল প্রতিদিন ৫০ হাজার নমুনা পরীক্ষার। সেখানে পরীক্ষা কমতে কমতে ১০ হাজারে ঠেকেছে।

নেতৃবৃন্দ প্রতিদিন ন্যূনতম ৫০ হাজার নমুনা পরীক্ষার দাবি করেন। এ জন্য প্রতিটি উপজেলায় নমুনা সংগ্রহ কেন্দ্র এবং প্রতিটি জেলার পিসিআর ল্যাব প্রতিষ্ঠার দাবি পুনর্ব্যক্ত করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী লীগের নেতা, আমলা ও ঠিকাদাররা যোগসাজশে স্বাস্থ্যখাতকে লুটেপুটে খাচ্ছে। ভুয়া করোনা সার্টিফিকেট কেলেংকারিতে যুক্ত মন্ত্রী-আমলাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে দোষী আমলাকে প্রমোশন দেয়া হয়েছে।

তারা অবিলম্বে মন্ত্রী, দোষী আমলার অপসারণ ও বিচার দাবি করেন। নেতৃবৃন্দ স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চয়তার পাশাপাশি দেশের ন্যূনতম আড়াই কোটি হতদরিদ্র মানুষকে প্রতি মাসে আড়াই হাজার টাকা নগদ সহায়তা প্রদানের দাবি জানান।

বরিশাল, পটুয়াখালী, ফরিদপুর, কিশোরগঞ্জ, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, ময়মনসিংহ, গাইবান্ধা, নারায়ণগঞ্জ, চাপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ‘ধিক্কার দিবস’ পালিত হয়।

নেতৃবৃন্দ চাপাইনবাবগঞ্জে ‘ধিক্কার দিবসের’ কর্মসূচিতে পুলিশি বাধা ও গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা জানান। অবিলম্বে গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবি জানান। ঢাকায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির শেষে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম