সোমবার, মার্চ ১
শীর্ষ সংবাদ

সাড়ে ৪৭ হাজার কোটি টাকা খেলাপি ঋণ শীর্ষ দশ ব্যাংকের

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: দেশের শীর্ষ দশ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪৭ হাজার ৪৭৪ কোটি টাকা। এটি মোট খেলাপি ঋণের ৪২ দশমিক ২২ শতাংশ। এর মধ্যে একক ব্যাংক হিসাবে সবচেয়ে বেশি খেলাপি ঋণ রয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব জনতা ব্যাংকের। ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২০ হাজার ৯৯৪ কোটি টাকা। এরপর পর্যায়ক্রমে শীর্ষ ঋণ খেলাপি ব্যাংকের তালিকায় রয়েছে এবি ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, পদ্মা ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামি ব্যাংক, আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, ট্রাষ্ট ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক ও কমার্স ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের সর্বশেষ প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে আসে।

সূত্র জানায়, নতুন বছরে খেলাপি ঋণ এক টাকাও বাড়বে না, অর্থমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পরেও চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৮ হাজার ৫১৪ কোটি টাকা। সর্বশেষ হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী গত ৩০ জুন পর্যন্ত দেশে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ ১২ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে দশটি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪৭ হাজার ৪৭৪ কোটি টাকা। এটি মোট ঋণের ৪২ দশমিক ২২ শতাংশ। অথচ গত বছরের (জুন-১৮) জুন পর্যন্ত এই দশ ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ছিল ২৫ হাজার ১৯৮ কোটি টাকা। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে ১০ ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বেড়েছে ২২ হাজার ২৭৬ কোটি টাকা।

এ ব্যাপারে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক অর্থ উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকিং খাতের সবচেয়ে বড় সমস্যা খেলাপি ঋণ। এই সমস্যা দিন দিন বাড়ছে। বিশেষ করে কয়েকটি ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ব্যাংকগুলোকে অতিমাত্রায় ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে।

তিনি বলেন, খেলাপি ঋণ কমার পরিবর্তে এভাবে বাড়তে থাকলে ব্যাংকিং খাত আরো চাপে পড়বে। তাই যেকোনো মূল্যে খেলাপি ঋণ উদ্ধার করতে হবে।

অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও বেসরকারি ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, খেলাপি ঋণ সামাজিক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটি শুধু কয়েকটি ব্যাংকের সমস্যা না বরং পুরো ব্যাংকিং খাতের সমস্যা।

তিনি বলেন, সরকার খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনতে চেষ্টা করছে। সর্বশেষ বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী বছরের প্রথম তিন মাসে যেভাবে খেলাপি ঋণ বেড়েছিল, পরের তিন মাসে বৃদ্ধির হার কিছুটা কমেছে। তবে আশা করছি আগামী কোয়ার্টারে খেলাপি ঋণ আরো কমে আসবে।

শীর্ষ ১০ ব্যাংকের খেলাপি ঋণ: চলতি বছরের ৩০ শে জুন পর্যন্ত সময়ে দেশের শীর্ষ দশ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪৭ হাজার ৪৭৪ কোটি টাকা। এর মধ্যে জনতা ব্যাংকের খেলাপি ২০ হাজার ৯৯৪ কোটি টাকা। এরপর পর্যায়ক্রমে শীর্ষ ঋণ খেলাপি ব্যাংকের তালিকায় রয়েছে, এবি ব্যাংকে ৬ হাজার ৭৬৩ কোটি টাকা, অগ্রণী ব্যাংক ৬ হাজার ২৬৯ কোটি টাকা, পদ্মা ব্যাংক (সাবেক ফার্মার্স ব্যাংক) ৩ হাজার ৬১১ কোটি টাকা, সোশ্যাল ইসলামি ব্যাংক ২ হাজার ১৮১ কোটি টাকা। এছাড়াও আল আরাফা ইসলামি ব্যাংকের ১ হাজার ৮৯৩ কোটি টাকা, ওয়ান ব্যাংক ১ হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা, ট্রাস্ট ব্যাংক ১ হাজার ৬১৪ কোটি টাকা, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক ১ হাজার ৩১৭ কোটি টাকা ও কমার্স ব্যাংক ৯৯৭ কোটি টাকা খেলাপি ঋণ রয়েছে।

অন্যদিকে, গত বছরের ৩০ শে জুন (অর্থ্যাৎ জুন-১৮) পর্যন্ত সময়ে উল্লেখিত দশ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২৫ হাজার ১৯৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে জনতা ব্যাংকের খেলাপি ছিল ৯ হাজার ৮৭৯ কোটি টাকা, এবি ব্যাংক ১ হাজার ৫২৪ কোটি টাকা, অগ্রণী ব্যাংক ৫ হাজার ৬৭৮ কোটি টাকা, পদ্মা ব্যাংক (সাবেক ফার্মার্স ব্যাংক) ১ হাজার ৫২১ কোটি টাকা, সোশ্যাল ইসলামি ব্যাংক ১ হাজার ৫৫৪ কোটি টাকা। এছাড়াও আল আরাফা ইসলামি ব্যাংকের ১ হাজার ৪২২ কোটি টাকা, ওয়ান ব্যাংক ১ হাজার ৯৪ কোটি টাকা, ট্রাস্ট ব্যাংক ১ হাজার ২৬ কোটি টাকা, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক ৯৫০ কোটি টাকা ও কমার্স ব্যাংক ৫৫০ কোটি টাকা। গত এক বছরে শতাংশের হিসাবে সবচেয়ে বেশি খেলাপি ঋণ বেড়েছে এ ব্যাংকের। ব্যাংকটির খেলাপি ঋণ বেড়েছে সাড়ে চারশ শতাংশ।


এখানে শেয়ার বোতাম