শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

সমালোচনার মুখে ছবিগুলো সরিয়েছেন ওবায়দুল কাদের

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সক্রিয় থাকা আওয়ামী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জাতীয় শোকদিবস ১৫ আগস্টে ১৫টি ছবি প্রথমে আপলোড করে সমালোচনার মুখে সেটা সরিয়ে নিয়েছেন।

এবার শোক আগস্ট দিবসের দিন নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ছবি পোস্ট করেন। শোকের এই দিনে কালো সানগ্লাস, কালো পোশাকের সঙ্গে মুচকি হাসিতে দেওয়া এ ছবিগুলো নিয়ে সমালোচনা হলে পরে তা সরিয়ে নেন। অবশ্য নিজর ফেসবুক থেকে ছবি সরিয়ে ফেলার আগে ওই ১৫টি ছবির স্ক্রিনশট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সংসদ ভবন এলাকায় নিজের বাসভবনের ভেতরে–বাইরে ছবিগুলো তুলেছিলেন ওবায়দুল কাদের। কালো পাঞ্জাবি, এর ওপরে কালো কটি এবং সাদা পায়জামা পরা। শিরোনাম দেন ‘ট্রিবিউট টু বঙ্গবন্ধু ১৫ আগস্ট ২০২০’।

কালো সানগ্লাস পরে বিভিন্ন ভঙ্গিমার এই ছবি দলের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের সমালোচনার শিকার হয়। ফেসবুকে এই ছবিগুলো প্রকাশের পর অনেকেই সমালোচনা করেন।

আজ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পরিবারসহ ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছিলেন। শোকের দিনে কালোব্যাজ ধারণ, কালো পোশাক পরিধান পরে আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা নানা কর্মসূচিতে অংশ নেন।

দেশে করোনা শনাক্তের পর থেকেই ওবায়দুল কাদের অনেকটা ঘরবন্দি হয়ে আছেন। বাইপাস সার্জারিসহ নানা শারীরিক জটিলতার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই তাকে বাসায় অবস্থানের নির্দেশনা দিয়েছিলেন বলে নানা মাধ্যমে জানা যায়। বাসায় থেকেই তিনি প্রায় প্রতিদিন ভিডিও বার্তার মাধ্যমে গণমাধ্যমে সরকার ও দলের বক্তব্য তুলে ধরেন। পাশাপাশি বাসায় বসে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়, সেতু বিভাগ, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ), বিআরটিএসহ অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ভিডিও সংযোগে যুক্ত হয়ে বিভিন্ন নির্দেশনা দেন। পাশাপাশি দলের নেতাদের সঙ্গেও ভিডিও কলের মাধ্যমে যুক্ত হচ্ছেন প্রায়ই। এর মধ্যে মাঝেমধ্যে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরেও গেছেন। বাসা ও দপ্তরের প্রতিটি কর্মকাণ্ডেরই বহু ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন তিনি।


এখানে শেয়ার বোতাম