রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৮
শীর্ষ সংবাদ

সংসার করতে রাজি না হওয়ায় স্ত্রী ও শাশুড়িকে খুন

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 45
    Shares

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে একসঙ্গে স্ত্রী ও শাশুড়িকে হত্যার ঘটনার মূল আসামি মেয়ে জামাই আজগর মিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করেছে পুলিশ। মামলার একমাত্র আসামি আজগর মিয়াকে শনিবার রাতেই গ্রেফতার করে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। রোববার দুপুরে আসামিকে মৌলভীবাজার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে তিনি ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

গত শুক্রবার ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের জামসি এলাকায় মা জায়েদা বেগম (৫৫) ও মেয়ে ইয়াসমিন বেগম (৩০) খুন হন। পরে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনার পর নিহত ইয়াসিনের বোন জেসমিন বাদী হয়ে ইয়াসমিনের স্বামী আজগর মিয়াকে আসামি করে শ্রীমঙ্গল থানায় শনিবার দুপুরে মামলা করেন।

শ্রীমঙ্গল সার্কেলের সিনিয়র পুলিশ সুপার আশিকুজ্জামান আশিক বলেন, মামলার দিন রাতেই আমরা তাকে গ্রেফতার করি। আমাদের ব্যপক জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার বর্নণা দিয়েছে। সে জানায় তার ৫ এবং ৩ বছরের দুইটা সন্তান রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রী আলাদা মায়ের সঙ্গে থাকায় নিজ বাড়িতে সন্তান দুটোকে সেই লালন পালন করছিল। বার বার সে নিতে চাইলেও স্ত্রী যেতে রাজি হয়নি। দীর্ঘদিনের একাকীত্বের যন্ত্রণা এবং দুই সন্তানকে একা লালন পালন করতে গিয়ে সে হাপিয়ে ওঠে। এর জেরেই সে এই জোড়া খুন করেছে বলে স্বীকার করেছে।

আসামির বরাত দিয়ে তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে আজগর মিয়ার শাশুড়ি এবং স্ত্রী ঘুমিয়ে পড়লে সে বেড়া ভেঙে ঘড়ে ঢোকে। চুলার পাশে থাকা লোহার চোঙ্গা দিয়ে প্রথমে শাশুড়িকে এবং পরে স্ত্রীকে আঘাত করে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়। পুলিশ শুক্রবার দুপুরে লাশ দুটি উদ্ধার করে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৫ জুন) দুপুর ১২টার দিকে নিজ ঘর থেকে মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই মেয়ের জামাই আজগর আলী পলাতক ছিলেন। প্রথম থেকেই ঘটনার জন্য তাকে সন্দেহ করছিল স্থানীয় এবং নিহতের পরিবার।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 45
    Shares