মঙ্গলবার, মার্চ ৯
শীর্ষ সংবাদ

সংঘাত বন্ধ করে জুম্ম জাতির ঐক্য গড়ার আহ্বানে খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: “ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামই মুক্তির একমাত্র পথ” এই শ্লোগানে সংঘাত বন্ধ ও জুম্ম জাতির ঐক্য গড়তে জেএসএস (লারমা)-এর প্রতি আহ্বান জানিয়ে খাগড়াছড়ির কয়েকটি স্থানে এলাকাবাসীর উদ্যোগে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ রবিবার খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাংগা, মানিকছড়ি, লক্ষ্মীছড়ি ও মহালছড়িতে এসব সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এসব সমাবেশ থেকে জেএসএস (এমএন লারমা)-এর প্রতি সংঘাত পরিহার করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়।

মাটিরাঙ্গা : আজ দুপুরে গুইমারা-মাটিরাঙ্গা এলাকাবাসীর ব্যানারে অনুষ্ঠিত মিছিল পরবর্তী সমাবেশে হাফছড়ি ইউনিয়নের মেম্বার কালা মারমার সঞ্চালনায় ও এলাকার মুরুব্বী রসিক কুমার চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট মুরুব্বী চান মোহন ত্রিপুরা, নাক্রাই পাড়া কার্বারী অংগ্যজয় মারমা ও চাইহ্লা প্রু কার্বারি।

সমাবেশের সঞ্চালক কালা মারমা বলেন, আমরা আর জুম্ম বনাম জুম্ম সংঘাত চাই না, ঐক্য চাই। আমরা যদি নিজেদের মধ্যে সংঘাতে লিপ্ত থাকি তাহলে অচিরেই ধ্বংস হয়ে যাবো। তিনি ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য জেএসএস (লারমা)সহ সকল দলের প্রতি আহ্বান জানান।

চান মোহন ত্রিপুরা বলেন, আমরা ভাইয়ে ভাইয়ে সংঘাত দেখতে চাই না, ঐক্যবদ্ধভাবে শক্তিশালী আন্দোলন দেখতে চাই। তিনি বলেন, যারা সংঘাত চায় তারা জাতীয় শত্রু, তারা দেশের শত্রু। তাই যারা সংঘাত চায়, আমরা তাদের ঘৃণা করব, তাদের প্রতিহত করব।

অংগ্যজয় মারমা বলেন,পার্বত্য চট্টগ্রামের চলমান সংঘাত দীর্ঘস্থায়ী হলে আমরা কেউ শান্তিতে থাকতে পারবো না। সংঘাত চলতে থাকলে শাসকগোষ্ঠীর নিপীড়ন ও সেটেলারদের ভূমি বেদখল, মা-বোনদের নির্যাতন বেড়ে যাবে। আর আমরা সচেতন নাগরিক হিসেবে এই ধ্বংস লীলা চেয়ে থাকতে পারি না। তাই আজকে এই সমাবেশের মাধ্যমে সংঘাত বন্ধের জোর আহ্বান জানাচ্ছি।

চাইহ্লা প্রু কাার্বারি বলেন, পাহাড়িদের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামই মুক্তির একমাত্র পথ। সকলে ঐক্যবদ্ধ হলেই আমাদের মুক্তি আসবে, নয়তো নয়!

সভাপতির বক্তব্যে রসিক কুমার চাকমা বলেন, আমরা এই সমাবেশ থেকে জেএসএস (লারমা) সহ সকল দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানাই- আপনারা সকলে মিলেমিশে, কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত রেখে আন্দোলন গড়ে তুলুন, তাহলেই আন্দোলন শক্তিশালী হবে। ভূমি রক্ষা হবে, মা-বোনদের উপর অত্যাচার বন্ধ হবে। সর্বোপরি জাতি রক্ষা হবে। আর তখনই আপনারা হবেন জাতি রক্ষক। প্রকৃত দেশপ্রেমিক। জাতি আপনাদের চিরকাল স্মরণে রাখবে। তাই আপনারা নিজেদের সকল দ্বন্দ্ব, সংঘাত ভুলে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন জোরদার করুন।

মানিকছড়ি : একই আহ্বানে সকাল ৯টায় মানকছড়িতেও মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানিকছড়ি এলাকাবাসীর ব্যানারে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জনপ্রতিনিধি (মেম্বার) সুমিতা চাকমা ও নিলো চাকমা।

তারা জেএসএস(এমএন লারমা)-এর প্রতি সংঘাত পরিহারের আহ্বান জানিয়ে বলেন, সংঘাত জাতির জন্য কখনো শুভ হতে পারে না। তাই এই ধ্বংসাত্মক কাজ বন্ধ করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলুন।

লক্ষ্মীছড়ি : লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার বর্মাছড়ি ইউনিয়নের কুতুকছড়ি বাজার মাঠে আজ সকালে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সাবেক মেম্বার পাইচিখোই মারমার সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য টুনি চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মহিলা মেম্বার সামাচিং মারমা ও এলাকার সচেতন নাগরিক মনদিরা মুন্ডা।

বক্তারা সংঘাত বন্ধের আহ্বান জানিয়ে বলেন, পাহাড়ি দিয়ে পাহাড়ি খুন, গুম আমরা চাই না। তাই আমরা সকল বিভেদ ভূলে ঐক্যবদ্ধভাবে শাসকগোষ্ঠির নিপীড়ন-নির্যাতন ও অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করার আহ্বান জানাচ্ছি।

মহালছড়ি : এছাড়া একই আহ্বানে মহালছড়িতেও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার মাইসছড়ি এলাকায় আজ বিকালে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মাইসছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাজাই মারমা, একই ইউনিয়নের মেম্বার ওয়াশিংটন চাকমা ও কিয়াংঘাট ইউনিয়নের মুরুব্বী সুকেতন চাকমা।

বক্তারা ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামের উপর জোর দিয়ে বলেন, দ্বন্দ্ব-সংঘাতের কারণে জাতির অস্তিত্ব আজ হুমকির সম্মুখীন। কাজেই এর থেকে উত্তরণই হবে জাতির জন্য মঙ্গলজনক কাজ।


এখানে শেয়ার বোতাম