শনিবার, জানুয়ারি ১৬

শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ করাসহ বিভিন্ন দাবিতে মাগুরায় গণকমিটির মানববন্ধন

এখানে শেয়ার বোতাম

মাগুরা প্রতিনিধি:: করোনা দুর্যোগের সময় শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ করা, বাসের ৬০% বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করা, করোনা টেস্ট ও করোনা রোগীর চিকিৎসার যথাযথ আয়োজনের দাবিতে মাগুরা জেলা করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় গণকমিটির উদ্যোগে মানববন্ধন।

আজ মঙ্গলবার (০৯ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় ।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন গণকমিটির আহ্বায়ক কাজী ফিরোজ ও পরিচালনা করেন যুগ্ম সদস্য সচিব শম্পা বসু । বক্তব্য প্রদান করেন যুগ্ম আহ্বায়ক এটিএম মহব্বত আলী , এ এফ এম বাহারুল হায়দার বাচ্চু, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী ।

বক্তাগণ বলেন, বাসের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক, এটা করোনায় বিপর্যস্ত জনগণের উপর মড়ার উপর খাড়ার ঘা। আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম এক তৃতীয়াংশে নেমে আসার পরও আমাদের দেশে তেলের দাম কমানো হয়নি। ফলে জ্বালানির দাম কমালে ভাড়া বৃদ্ধির প্রয়োজন হবে না। নেতৃবৃন্দ বাসের ভাড়া বৃদ্ধি না করে বিভিন্ন সড়কে সরকারি টোল আদায় বন্ধ, পেট্রোল ও ডিজেলের দাম কমানোর দাবি করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা দুর্যোগে যখন মানুষ অসহায় তখন তাদেরকে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে । মাগুরা টেক্সটাইল মিলে শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হয়েছে । গার্মেন্টস মালিকরা করোনা দুর্যোগের শুরুতেই সরকারের কাছ থেকে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা আদায় করে এখন বলছে জুন মাস থেকে শ্রমিক ছাঁটাই করবে। মানববন্ধন থেকে নেতৃবৃন্দ শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধের দাবি জানান ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সারা দেশের মতো মাগুরা জেলাতেও করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে । মাগুরাতে দুইজন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার পর তাদের নমুনা পরীক্ষা করে জানা গেছে তারা করোনা পজিটিভ ছিলেন । শুরু থেকে গণকমিটি মাগুরা জেলায় করোনা টেস্টের ব্যবস্থা করে প্রতিদিন অন্তত ৫০০ নমুনা টেস্টের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছে । আইসিইউ ও কমপক্ষে ৫টি ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা করার দাবি জানান হয়েছে । কিন্তু বরাবরের মতো মাগুরা জেলার মানুষের চিকিৎসা সেবার আয়োজনের দাবি উপেক্ষিতই রয়ে গেছে ।

মানববন্ধন থেকে নেতৃবৃন্দ নিম্নলিখিত দাবিগুলো তুলে ধরেন:
১| করোনা দুর্যোগের সময় শ্রমিক ছাঁটাই করা চলবে না ।
২| বাসের ৬০% বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করতে হবে ।
৩| মাগুরা জেলা সরকারি হাসাপাতালে অবিলম্বে করোনা টেস্টের ব্যবস্থা করে প্রতিদিন ৫০০ নমুনা পরীক্ষা করতে হবে, আইসিইউ ও কমপক্ষে ৫টি ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা করতে হবে।
৪| ২৫০০ টাকা বরাদ্দ ও বিশেষ ওএমএস কার্ড বিতরণের তালিকা অনলাইন ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশ করতে হবে । ত্রাণ বিতরণে দুর্নীতি দলীয়করণ বন্ধ করতে হবে। করোনা দুর্যোগ মোকাবিলায় দলীয়করণ বাদ দিয়ে সর্বদলীয় গণকমিটি গঠন করতে হবে।
৫| দরিদ্র, নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত, শ্রমজীবী প্রতিটি পরিবারকে ন্যূনতম ৬ মাস আর্মি রেটে রেশন বরাদ্দ করতে হবে।
৬| সরকার নির্ধারিত দামে খোদ কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতে হবে।
৭| ডাক্তার, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মী, মিডিয়াকর্মী এবং নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজে নিয়োজিতদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে।
৮| শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সচল না হওয়া পর্যন্ত মাগুরা জেলার সকল মেস ভাড়া মওকুফ করতে হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম