বুধবার, জানুয়ারি ২০

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচ জিতে চারে চার চট্টগ্রাম

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 5
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: চার-ছক্কার বিনোদনদায়ী ক্রিকেট টি-টোয়েন্টি। কিন্তু গত কয়েকটি ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ম্যাড়মেড়ে ক্রিকেট দেখেছে মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ফ্লাডলাইটের আলোয় বুধবার দুই দলেরই ব্যাটে ছিল জমজমাট প্রদর্শনী। লিটন-সৌম্য-মোসাদ্দেকের পর আনিসুল-নাজমুল-মেহেদী-ফরহাদ-রনিরা চার-ছক্কার ফুলঝুরি ছুটিয়ে দর্শকদের টি-টোয়েন্টির বিনোদন দিয়েছেন। শেষ বলে নিষ্পত্তি হওয়া ম্যাচে রোমাঞ্চকর এক জয় পেয়েছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। রাজশাহীকে ১ রানে হারিয়ে নিজেদের টানা চতুর্থ জয় তুলে নিয়েছে তারা।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১৪ রান প্রয়োজন ছিল রাজশাহীর। সেই লক্ষ্যের অনেক কাছে গিয়েও হারতে হলো নাজমুল হোসেনের দলকে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের দেওয়া ১৭৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা অবশ্য ভালোই করেছিল রাজশাহী।

ওপেনিং জুটিতে ৫৬ রান তোলেন নাজমুল-আনিসুল। রাজশাহীর অধিনায়ক ১৪ বলে ২৫ রান করে আউট হওয়ার পর কিছুটা ছন্দপতন ঘটে চার ম্যাচে দুটি জয় পাওয়া রাজশাহীর। অভিজ্ঞ আশরাফুলের ১৯ বলে ২০ ও ফজলে মাহমুদের ৯ বলে ১১ যথেষ্ট ছিল না জয়ের দ্বারপ্রান্তে দলকে নিয়ে যেতে। আশা জেগে উঠেছিল মিডল অর্ডারে ব্যাটিংয়ে নামা মেহেদী হাসানের ব্যাটিংয়ে। কিন্তু ১৭ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ২৫ রানের ইনিংস খেলে শরিফুলের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন তিনি। শেষ দিকে ফরহাদ রেজা (৫ বলে ১২), নুরুল হাসানের (৭ বলে ৮) এবং রনি তালুকদার (৫ বলে ১২) চেষ্টাও বৃথা যায়। চট্টগ্রামের বোলারদের মধ্যে মোস্তাফিজুর রহমান ৩৭ রান দিয়ে তিনটি উইকেট নেন। শরিফুল ইসলাম ৪১ রানে নেন ২ উইকেট। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন মোসাদ্দেক ও জিয়াউর রহমান।

টসে হেরে আগে ব্যাটিং করে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে। যা টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ স্কোর। এই স্কোর গড়তে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছেন লিটন দাস। খেলেছেন ৭৮ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। যা কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে লিটনের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ৫৩ বলে ৯ চার ও ১ ছক্কায় সাজিয়েছেন তার ইনিংসটি।

দুই ওপেনার সৌম্য-লিটনের ৬২ রানের জুটি দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যায় শুরুতেই। সৌম্য ২৫ বলে ৩৪ রান করে আউট হলেও লিটন অপরাজিত থাকেন। দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক মিঠুনকে সঙ্গে নিয়ে ৩১ রানের জুটি গড়েন। মিঠুনের (১১) আউটের পর দ্রুত ফিরে যান শামসুর রহমান (১)। এরপর মোসাদ্দেক ক্রিজে এসেই শুরু করেন ঝড়। ২৮ বলে ৪২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন তিনি। ততক্ষণে লিটন টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার সেরা ৭৮ রানের ইনিংস খেলে ফেলেছেন।

এর আগে লিটনের সর্বোচ্চ রান ছিল ৭৫। গত বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে রাজশাহী রয়্যালসের হয়ে খেলেছিলেন ৪৮ বলে ৭৫ রানের ইনিংস। ১০ মাসের ব্যবধানে নিজের সর্বোচ্চ রানটা টপকে গেলেন। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে লিটনের সর্বোচ্চ ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে করা ৬১ রানের ইনিংস।

রাজশাহীর বোলারদের মধ্যে মুকিদুল ইসলাম ৩০ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া ফরহাদ রেজা নিয়েছেন ১ উইকেট।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 5
    Shares