বুধবার, নভেম্বর ২৫

শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফসহ তিন দফা দাবিতে ছাত্র ফ্রন্টের স্মারকলিপি

এখানে শেয়ার বোতাম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:: করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফ, অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের অর্থিক সহযোগিতা এবং সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এ বছরের বেতন ফি ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সেমিস্টার টিউশন ফি মওকুফের দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট চট্টগ্রাম নগর শাখার উদ্যোগে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।

আজ সকালে স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট চট্টগ্রাম নগর সভাপতি রায়হান উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিরাজ উদ্দিন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক প্রীতম বড়ুয়া, মো সাকিব,আশরাফুল আলম সজিব ।

এসময় নেতৃবৃন্দ বলেন, বলার অপেক্ষা রাখে না, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে গোটা মানবজাতিকে লড়াই করতে হচ্ছে। স্থবির হয়ে পড়েছে মানুষের জীবন জীবিকা। করোনাকালীন এই সময়ে তৈরি মানুষের বহুমুখী সংকট। দেশের অধিকাংশ মানুষ কাজ হারিয়ে বেকার জীবন যাপন করছে। বেঁচে ন্যূনতম চাহিদা পূরণে সংগ্রাম করতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। করোনাকালীন এই সময়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শিক্ষার্থীদের। এই বছরের মার্চ মাস থেকে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ফলে শিক্ষার আনন্দময় পরিবেশ হতে বঞ্চিত হচ্ছে লাখ লাখ শিক্ষার্থী। আতঙ্ক আশঙ্কায় দিন কাটছে তাদের। একদিকে পরিবারের আর্থিক অসংগতি অন্য দিকে বেচে থাকার নিরন্তর সংগ্রাম। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের দিতে হচ্ছে মাসিক বেতন ফি ও টিউশন ফি। যা আর্থিক ভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের পক্ষে দেওয়া সম্ভব নয়। ফলে তাদের শিক্ষাজীবন শেষ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আবার চট্টগ্রাম শহরে শিক্ষার্থীদের একটা বড় অংশ আবাসন ব্যবস্থার বাইরে থাকায় তাদেরকে বাসা / মেস ভাড়া করে থাকতে হয়। একদিকে পরিবারের তিনবেলা খাবার নিশ্চিত না, অন্যদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের বাসা / মেস ছেড়ে বাড়িতে অবস্থান করলেও তাদের অনর্থক মেস ভাড়া গুনতে হচ্ছে। যেখানে পরিবারের ন্যূনতম চাহিদা পূরণের অনিশ্চিয়তা সেখানে শিক্ষার্থীরা কিভাবে বেতন ফি , মেস ভাড়া যোগাড় করবে?

নেতৃবৃন্দ বলেন চট্টগ্রাম শহরের প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বড় অংশ মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। যেখানে তাদেরকে স্বাভাবিক সময়েই নিয়মিত সেমিস্টার ফি পরিশোধ করতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় সেখানে করোনাকালীন এই দুর্যোগে তাদের পক্ষে সেমিস্টার ফি দেওয়া দুঃসাধ্য । নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিলম্বে তাদের কথা বিবেচনা করে অন্তত এক সেমিস্টার টিউশন ফি মওকুফ করা প্রয়োজন।নেতৃবৃন্দ আরো বলেন শিক্ষার্থীদের উক্ত সংকট নিরসনে প্রয়োজন রাষ্ট্রীয় সহায়তা।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে দাবিসমূহ বাস্তবায়নে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম