সোমবার, নভেম্বর ৩০

শহিদ সুজল স্মরণে পাগলায় রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্টের সভা

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 86
    Shares

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:: ১৯৮৮ সালে ডায়মন্ড স্টিল রি-রোলিং মিলে শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে নিহত শহিদ সুজল স্মরণে আজ বিকাল ৫ টায় পাগলার রসুলপুরে রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট পাগলা শিল্পাঞ্চল শাখার উদ্যোগে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট পাগলা আঞ্চলিক শাখার সভাপতি গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, বাসদ ফতুল্লা থানার সমন্বয়ক এম এ মিল্টন, রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আফজাল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি জামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এস এম কাদির, পাগলা শিল্পাঞ্চল শাখার সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, সাংগঠনিক সম্পাদক মমিন, দাউদ আলী মামুন, বুলবুল প্রমূখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ১৯৮৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বরে শ্যামপুরে অবস্থিত ডায়মন্ড স্টিল রি-রোলিং মিলে শ্রমিক ছাঁটাই, নির্যাতন বন্ধ, নিয়োগপত্র-পরিচয়পত্র প্রদান, ট্রেড ইউনিয়ন অধিকারসহ শ্রম আইন বাস্তবায়নের দাবিতে আন্দোলনরত অবস্থায় ঐ কারখানায় আনসারের গুলিতে শ্রমিক সুজল মৃত্যুবরণ করে। এরপর থেকে অত্র অঞ্চলে ১১ সেপ্টেম্বর শহিদ সুজল দিবস হিসাবে পালিত হয়।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সুজলের আত্মত্যাগের পর দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও রি-রোলিং ও স্টিল মিলগুলোতে নিয়োগপত্র পরিচয়পত্র দেয়া হয় না। কথায় কথায় সেখানে চলে শ্রমিক ছাঁটাই। মালিক কর্তৃপক্ষের অন্যায়ের প্রতিবাদ করলেই নেমে আসে নির্যাতন, মিথ্যা মামলা, গ্রেফতার, হয়রানি। রি-রোলিং খাতে সর্বশেষ ২০১১ সালে ৪৪০০ টাকা নিম্নতম মজুুরি ঘোষণা হয়। ন্যূনতম ৫ বছরের মধ্যে নতুন মজুরি ঘোষণা ও বাস্তবায়নের আইন থাকলেও ২০২০ সালে এসেও নতুন মজুরি বাস্তবায়ন হয়নি। বর্তমান বাজার দর বিবেচনায় পরিবার-পরিজন নিয়ে কোন রকমে বেঁেচ থাকতে হলে রি-রোলিং খাতে নিম্নতম মজুরি ২২০০০ টাকা ঘোষণা করা শ্রমিকদের দাবি।

নেতৃবৃন্দ বলেন, মহান মে দিবস আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস, এটা সরকারি ছুটির দিন। আমাদের দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালন করা হয়। অথচ মে দিবসের দিনে রি-রোলিং ও স্টিল মিলগুলো আইন লঙ্ঘন করে জোর জবরদস্তি চালু রাখা হয়। ২০১৯ সালের মে দিবসে পাগলা-শ্যামপুর শিল্পাঞ্চলে রি-রোলিং শ্রমিকরা মালিকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে মে দিবসে ঐ অঞ্চলে তাদের দাবি দাওয়ার ব্যানার, ফেস্টুন ও লাল পতাকা নিয়ে শোভাযাত্রা করে। এতে মালিকরা পরিকল্পিতভাবে রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক ও পাগলা শিল্পাঞ্চল শাখার বাসদ সমন্বয়ক এস এম কাদির, রি-রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট শ্যামপুর- কদমতলী-পোস্তগোলা শিল্পাঞ্চল শাখার সহ-সভাপতি বজলুর রহমানসহ নেতৃবৃন্দের নামে কদমতলী থানায় ৪ টি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যেখানে সরকারি ছুটির দিন কারখানা চালানোর কারণে সংশ্লিষ্ট সকল মালিকদের বিরুদ্ধে সরকারিভাবে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা সেখানে আজ ছুটির দিনে ন্যায়সঙ্গত মিছিল করায় নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার হচ্ছে।

নেতৃবৃন্দ শহিদ সুজলের সংগ্রাম থেকে শিক্ষা নিয়ে নিয়োগপত্র-পরিচয়পত্র, নিম্নতম মজুরি ২২০০০ টাকা , ছাঁটাই-নির্যাতন বন্ধ, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে শক্তিশালি আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 86
    Shares