মঙ্গলবার, মে ১৮
শীর্ষ সংবাদ

লকডাউন কার্যকরি করতে সরকারের সর্বাত্মক ও সমন্বিত পদক্ষেপ জরুরী: সাইফুল হক।

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: সর্বাত্মক লকডাউন কার্যকরি করতে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতির মত সরকারের সর্বাত্মক ও সমন্বিত পদক্ষেপ জরুরী বলে মন্তব্য করেছেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ কার্যকরি করতে সরকারের সর্বাত্মক ও সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন। যুদ্ধকালীন পরিস্থিতির মত করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় জরুরী ভিত্তিতে সমস্ত প্রতিষ্ঠানিক সক্ষমতা, অভিজ্ঞতা ও সম্পদ কাজে লাগানো প্রয়োজন। সরকারের নীতিনির্ধারক ও কর্মকর্তাদের প্রচারসর্বস্বতা পরিহার করে ও কথা কম বলে মহামারী মোকাবেলার বাস্তব কাজে সর্বোচ্চ মনযোগ দেয়া প্রয়োজন। তিনি বলেন, শ্রমজীবী-মেহনতি, দিনমজুর ও স্বল্প আয়ের পরিবারসমূহের কাছে খাদ্য ও নগদ অর্থ না পৌঁছানো না গেলে কেবল সরকারি ঘোষণা দিয়ে লকডাউন কার্যকরি করা যাবে না। তিনি অনতিবিলম্বে এসব পরিবারসমূহের কাছে এক মাসের খাবার ও নগদ পাঁচ হাজার টাকা করে পৌঁছানোর দাবি জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন করোনা মহামারীর এক বছর পর পরোনার পরীক্ষা ও চিকিৎসার ব্যাপারে অভিজ্ঞতা, অব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়হীনতার অজুহাত দেবার সুযোগ নেই। তিনি সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালসমূহকেও করোনার চিকিৎসায় যুক্ত করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কারণে জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা সামগ্রীর আমদানি ও কেনাকাটা নিয়ে এখনও বড় ধরনের সংকট রয়েছে। তিনি এসব খাতের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবার দাবি জানান।

একই সাথে তিনি করোনার টিকা আমদানির ব্যাপারে জরুরী ভিত্তিতে বিকল্প উৎস খুঁজে বের করারও দাবি জানান।

তিনি ক্ষোভের সাথে উল্লেখ করেন সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে গার্মেন্টসসহ শিল্প-কারখানা চালু রাখার সিদ্ধান্ত স্ববিরোধী। এই ব্যাপারে তাদের যুক্তি গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি বলেন, শ্রমিকেরা যদি ব্যাপকভাবে সংক্রমিত হতে থাকেন তাহলে তার দায়দায়িত্ব মালিক পক্ষ ও সরকারকেই বহন করতে হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম