সোমবার, নভেম্বর ২৩

রুশ বিপ্লবের ১০৩ তম বার্ষিকী উপলক্ষে চাঁদপুরে আলোচনা সভা

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 43
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: মহান রুশ বিপ্লবের ১০৩ তম বার্ষিকী উপলক্ষে ২০ নভেম্বর বাসদ(মার্কসবাদী) পাঠচক্র ফোরাম, চাঁদপুর জেলার শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় কমরেড দীপক রাউতের সভাপতিত্বে এবং হাজেরা আক্তার ময়ূরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় পাঠচক্র ফোরামের সমন্বয়ক কমরেড শুভ্রাশু চক্রবর্তী, সদস্য কমরেড আজিজুর রহমান।

আরও বক্তব্য রাখেন কমরেড মিজানুর রহমান গাজী, হাবিবুর রহমান, সাদ্দাম মাহমুদ, সাদ্দাম হোসেন, সাজিয়া আফরিন, গিয়াসউদ্দিন বাবু, মনির প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, মহামতি লেলিনের নেতৃত্বে ১৯১৭ সালের নভেম্বর বিপ্লব মানবজাতির জন্য মহত্তম কর্মযজ্ঞ।যা পৃথিবীর সর্বহারা শ্রেণীকে একসূত্রে মিলিত করেছিল।মানবমুক্তির সর্বপ্রথম দিশার আলো দেখিয়েছিলো রুশ বিপ্লব।এই বিপ্লবের মাধ্যমে রাশিয়া পশ্চাৎপদ সামন্তীয় সমাজব্যবস্থা থেকে একটি উন্নত, মানবিক সমাজব্যবস্থা প্রবর্তন করে পৃথিবীর বুকে স্বগর্ভে মাথা উঁচু দাঁড়িয়েছিলো।যার স্বাক্ষর তাঁরা অর্থনীতি, শিক্ষা, সংস্কৃতি, নৈতিকতা, উন্নত মূল্যবোধ সর্বত্রই রেখেছিলো।রুশ বিপ্লব এই শিক্ষা দেয় বুর্জোয়া সমাজব্যবস্থা মানব জাতির বিকাশ অবরুদ্ধ করে মানুষকে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক ভাবে শোষণ ও নিষ্পেষিত করছে।

বক্তারা আরো বলেন, আমাদের দেশেও বুর্জোয়া শ্রেণী মানুষকে শোষণের যাঁতাকলে নিষ্পেষিত করছে।একদিকে সমস্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রীর দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অন্যদিকে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে মানুষের আয় রোজগার কমেছে।মানুষের করোনাকালীন চিকিৎসার অব্যবস্থাপনার ফলে সুচিকিৎসার অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। পাটকল বন্ধ করে দিয়ে পাটকল শ্রমিকদের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে ঠেলে দিয়েছে।

বক্তারা বলেন, বান্দরবান চিম্বক পাহাড়ে ম্রো সম্প্রদায়কে উচ্ছেদ করার পরিকল্পনা করছে কুখ্যাত সিকদার গ্রুপের পাঁচতারকা হোটেল নির্মাণের নামে।এ সবই বাংলাদেশের বুর্জোয়া শ্রেণীর শোষণের ফলাফল।আর এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য যেমন একটা গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগঠিত করা প্রয়োজন তেমনি এই ব্যবস্থা পরিবর্তনের জন্য প্রয়োজন একটা বিপ্লবী পার্টি। তাই নভেম্বর বিপ্লবের চেতনায় আজকে বাংলাদেশের মাটিতে একটি সঠিক বিপ্লবী দল গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 43
    Shares