মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪

রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার আহবান স্কপের

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধ এবং শ্রমিক ছাঁটাই এর প্রতিবাদ করেছে শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ। আজ সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশ থেকে সরকারের প্রতি রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার আহবান জানান স্কপ নেতৃবৃন্দ।

স্কপ নেতা বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি শহীদুল্লাহ চৌধুরী এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক জোট বাংলাদেশের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামরুর আহসান, জাতীয় শ্রমিক জোটের কার্যকারী সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ, ট্রেড ইউনিয়ন সঙ্ঘের সাবেক সভাপতি খলিলুর রহমান, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারন সম্পাদক আহসান হাবিব বুলবুল।

উপস্থিত ছিলেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন, বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের দপ্তর সম্পাদক শাহীদা পারভিন শীখা, অর্থ সম্পাদক কাজী রুহুল আমীন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কোষাধ্যক্ষ জুলফিকার আলী, জাতীয় শ্রমিক জোট বাংলাদেশের সরদার খোরশেদ, মোহাম্মদ মোস্তাক প্রমুখ।

কর্মসূচী সঞ্চালনা করেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেকুজ্জামান লিপন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, পাটকল বন্ধ নয় বরং ১২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিক করা হলে শ্রমিক ছাঁটাই করতে হত না, উৎপাদন তিনগুন বাড়ানো সম্ভব হত।

শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে বিস্তাারিত পরিকল্পনা উপস্থাপন করা হয়েছিল কিন্তু দুর্নীতিবাজ আমলা, ভুল নীতি, বিশ্বব্যাংকের পরামর্শ এবং রাষ্ট্রীয় সম্পদ ব্যক্তিগতভাবে হস্তগত করার কায়েমি স্বার্র্থের কারনে দেশের রাষ্ট্রীয় কারখানাগুলো বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, যুক্তফ্রন্টের ২১ দফা এবং স্বাধীনতা যুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে উঠা রাষ্ট্রীয় পাটকল লুটপাটকারীদের হাতে ছেড়ে দেয়া যায় না। পাটকল বন্ধ করা নয় যাদের ভুল নীতি ও দুর্নীতির কারনে পাটকল সমুহ লোকসান করেছে তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

নেতৃবৃন্দ স্কপ প্রদত্ত সুপারিশ বাস্তবায়ন, কারখানাসমুহ আধুনিকায়ন এবং শ্রমিকদের আধুনিক মেশিন চালানোর উপযোগী প্রশিক্ষন দেয়ার দাবী করেন এবং কারখানা বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, আমলাদের দুর্নীতি আর ভুল নীতির কারণে যে লোকসান তাকে আড়াল করা আর লোকসান কে অজুহাত করে বেসরকারীকরণের বিশ্বব্যাংকের পরামর্শ বাস্তবায়নের এই পদক্ষেপে শ্রমিকরা ন্যায্য মজুরি, চাকুরির নিরাপত্তাসহ শ্রম অধিকার নিয়ে দরকষাকষির ন্যূনতম সক্ষমতাটুকুও হারাবে। তাই শ্রমিক স্বার্থ বিরোধী এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেনা শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপ।


এখানে শেয়ার বোতাম