রবিবার, জানুয়ারি ১৭

রাষ্ট্রীয় পাটকলসমূহ বেসরকারী খাতে হস্তান্তরকে মানবে না স্কপ

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 17
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপ কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সভা গত ২৯ নভেম্বর ২০২০, বিকাল ৪টায়, স্কপের যুগ্ম সমন্বয়ক সহিদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে স্কপ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় উপস্থিত স্কপ নেতা সাইফুজ্জামান বাদশা, কামরুল আহসান, শামীম আরা, আজিজুন নাহার, আহসান হাবিব বুলবুল, শাকিল আক্তার চৌধুরী,  কামাল সিদ্দিকী, খোরশেদ আলম, কাজী রুহুল আমিনসহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দ, বন্ধ রাষ্ট্রীয় পাটকলসমূহ বেসরকারী খাতে ছেড়ে দেয়া হবে বলে পাটমন্ত্রীর ঘোষণার নিন্দা জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, পাটমন্ত্রী বলেছেন অন্যান্য বছর পাটচাষীরা পাটের দাম প্রতি মণ ২ হাজার টাকা পেলেও এ বছর মণ প্রতি ৩ হাজার টাকা পেয়েছে। পাট মন্ত্রীর এই কথায় প্রমাণ করে আন্তর্জাতিক বাজারে পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে আর সেই বর্ধিত চাহিদা পূরণে বেসরকারী পাটকল মালিকদের একছত্র ব্যবসা করার সুযোগ করে দিতেই আধুনিকায়ন করে চালু করার কথা বলে রাষ্ট্রিয় পাটকলসমূহ বন্ধ করে দিয়ে এখন সেগুলি বেসরকারী মালিকানায় হস্তান্তরের কথা বলা হচ্ছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, পাটকল বা চিনিকল সমূহের লোকসানের দায়-দায়িত্ব শ্রমিকের না, আমলাতন্ত্রের ভূলনীতি আর দূর্ণীতিই এই লোকসানের কারন অথচ দূর্ণীতিবাজ আমলাতন্ত্রকে অক্ষত রেখে লোকসানের দায় শ্রমিকদের কাঁধে চাপিয়ে রাষ্ট্রীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান বেসরকারী খাতে ছেড়ে দেওয়া কোন ভাবেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে যায়না।

রাষ্ট্রীয় চিনিকল সমূহ পর্যায়ক্রমে বন্ধের নিন্দা এবং চিনিকল বন্ধের প্রতিবাদে চলমান আন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, স্বৈরাচারি
এরশাদ সরকারের বিরাষ্ট্রীয়করণ নীতি প্রতিরোধ করতে যে শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ গড়ে উঠেছিল, সেই স্কপ কোন অবস্থায় রাষ্ট্রিয় পাটকল সমূহ নির্বিগ্নে লুটপাটের জন্য বেসরকারী মালিকদের কাছে হস্তান্তরকে মেনে নেবেনা।

নেতৃবৃন্দ, রাষ্ট্রীয় সকল পাটকল ও চিনিকলসমূহ চালু ও আধুনিকায়নের দাবি জানান এবং রাষ্ট্রীয় শিল্প বেসরকারীকরণের প্রক্রিয়া বন্ধ করা না হলে বৃহত্তর ও কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে বলেহুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 17
    Shares