সোমবার, মার্চ ১
শীর্ষ সংবাদ

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল একই পরিবারের ৫ সদস্যের

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: ব্যবসায়ী রফিকুজ্জামান পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে এক আত্মীয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন । তবে পৌঁছাতে পারেননি তিনি বা তার সঙ্গে থাকা অন্যরাও। সড়ক দুর্ঘটনায় তিনি, তার স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে মারা গেছেন। এ দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে তার শ্যালকেরও। বেঁচে আছে শুধু পরিবারটির এক শিশু সন্তান।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কের গাওরামগোপালপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, সাড়ে ১০ টার দিকে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে রফিকুজ্জামানের পরিবারের সদস্যদের বহনকারী প্রাইভেটকারটি। কিশোরগঞ্জগামী এমকে সুপার নামের একটি বাসের সঙ্গে ময়মনসিংহগামী প্রাইভেটকারটির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে মুচড়ে যায়।

খবর পেয়ে ঈশ্বরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের দকমল কর্মীরা দুর্ঘটনাস্থলের পাশের খাদ থেকে রফিকুজ্জামানের স্ত্রী শাহীনা আক্তারের (৩৬) লাশ উদ্ধার করেন। গুরুতর অবস্থায় ময়মনসিংহ হাসাপাতালে পাঠানো হয় রফিকুজ্জামান, তার ছেলে নাদিম (১৮) মেয়ে রওনক জাহান (১৩), ছেলে নাহিদ (৩) ও প্রাইভেটকার চালক স্বপন মিয়াকে। আহত হন রফিকুজ্জামানের শ্যালক আশরাফ হোসেনও।

সবাইকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রফিকুজ্জামান, নাদিম ও রওনক জাহানকে মৃত ঘোষণা করেন। বেলা আড়াইটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় রফিকুজ্জামানের শ্যালক আশরাফেরও (২৫) । অবস্থা শঙ্কটাপন্ন অবস্থায় আইসিওতে চিকিৎসা চলছে তিন বছরের শিশু নাহিদের।

পুলিশ ও নিহতদের স্বজনরা জানিয়েছেন, ব্যবসায়ী রফিকুজ্জামানের বাড়ি নেত্রকোনার দূর্গাপুর উপজেলার চন্ডীগর এলাকায়। ঈশ্বরগঞ্জের মগটুলা ইউনিয়নের মধুপুর বাজারের পাশে রফিকুজ্জামানের শ্বশুর বাড়ি। গত বৃহস্পতিবার স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন রফিকুজ্জামান। সেখান থেকে এক আত্মীয়র বিয়েতে যোগ দিতে শুক্রবার প্রাইভেটকারে করে যাচ্ছিলেন তারা। কিন্তু দুর্ঘটনায় পরিবারটির পাঁচ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। ছোট্ট শিশু নাহিদ মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করছে হাসপাতালের বিছানায়।

নিহতদের স্বজন ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমান জানান, এক আত্মীয়র বিয়েতে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনাটি ঘটে। এতে পরিবারটি পাঁচ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। শিশুটির অবস্থাও ভালো নয়।

ঈশ্বরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঘটনাস্থলের পাশের খাদ থেকে নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

ময়মনসিংহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গৌরীপুর সার্কেল) সাখের হোসেন সিদ্দিকী বলেন, ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক। স্বামী-স্ত্রী সন্তানসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। আরো এক শিশুর অবস্থাও শঙ্কটাপন্ন। ঘটনার পর দুর্ঘটনার কবলে পড়া গাড়িগুলো সড়ক থেকে সরিয়ে সড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক করা হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম