বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩

ভিপির ওপর হামলা মানে পুরো জাতির ওপর হামলা : সাদা দল

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: ডাকসুর নির্বাচিত ভিপির ওপর হামলা মানে পুরো জাতির ওপর হামলা, পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর হামলা বলে মন্তব্য করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল।

মঙ্গলবার দুপুরে সাদা দলের নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে মানববন্ধনে এমন কথা বলেন সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. ওবায়দুল ইসলাম।

ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এ সময় ভিপি ও তার সহযোগীদের ওপর বর্বর হামলার নিন্দা জানিয়ে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

অধ্যাপক ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যকে নষ্ট করেছে এই মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। এই হামলার পর আমরা শিক্ষক হিসেবে লজ্জিত। শুধু এই ঘটনা নয়, আজ ঢাবির বিভিন্ন হলেও সন্ত্রাসী হামলা চলে। মতের ভিন্ন হলেই মার দেয়া হয়। ভিপি তাদের মতের সমর্থন করে না বলে তাকে মারা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অবহেলার কারণেই ডাকসুর ভিপির ওপর হামলা হয়েছে। প্রশাসন যদি ডাকসু ভিপির ওপর হামলার বিচার না করে তাহলে আমরা শিক্ষকসমাজ রাজপথে নামতে বাধ্য হব।

তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে আবরার ফাহাদকে ৫ ঘণ্টা নির্যাতনের মাধ্যমে মেরে ফেলা হয়েছে। এদের বিচার না হলে অন্যায় করার সুযোগ বেড়ে যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে দ্রুত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা এবং নুরসহ সবার চিকিৎসার খরচ প্রশাসনকে বহনের দাবি জানান তিনি।

রোকেয়া হলের সাবেক প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. লায়লা নূর ইসলাম সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বলেন, ডাকসু সমগ্র জাতির গৌরবের জায়গা। সে জায়গায় সন্ত্রাসী হামলা মেনে নেয়া যায় না। ঢাবির ওপর আঘাত আসলে জাতির ওপর আসে। এটা মুক্ত বুদ্ধি চর্চার জায়গা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া উচিত ছিল। কিন্তু প্রশাসন ব্যর্থ হয়েছে।

সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক রাশেদ মাহমুদ বলেন, আমি প্রতিবাদ জানাচ্ছি না, এই বিচারহীনতার দেশে। আমাদের কণ্ঠস্বর কেড়ে নেয়া হয়েছে। একটার পর একটা ঘটনা ঘটিয়ে পূর্ব ঘটনা মুছে দেয়ার চেষ্টা করছে ক্ষমতাসীন দল। ওয়াদা করতেছি, অদূর ভবিষ্যতে যে দলই ক্ষমতায় আসুক না কেন, দল মত না দেখে আমরা প্রতিবাদ করব।

সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলামের সভাপতিত্বে অর্ধশতাধিক শিক্ষক এতে অংশ নেন। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন সাদা দলের যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. লুৎফর রহমান, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. হাসানুজ্জামান, তরুণ উদ্ভিদবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মোজাদ্দেদী আলফেছানী, অধ্যাপক ড. মো. আবদুর রশীদ, অধ্যাপক মো. শহীদুল ইসলাম, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের শিক্ষক মো. আল আমিন প্রমুখ।


এখানে শেয়ার বোতাম