শনিবার, এপ্রিল ১৭
শীর্ষ সংবাদ

ভারতীয় অর্থনীতিতে অপ্রত্যাশিত মন্দা : আইএমএফ

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: নন-ব্যাংকিং অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্কট এবং পণ্য ও পরিষেবা কর কিংবা নোট বাতিলের মতো পদক্ষেপ ২০১৯ সালে ভারতীয় অর্থনীতিতে অপ্রত্যাশিত মন্দা এনেছে, তবে এটা বিপর্যয় নয়। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ক্রিস্টালিনা জিওরজিভা ভারতের অর্থনীতি নিয়ে এমন তথ্য দিলেন।

গতকাল শুক্রবার ওয়াশিংটনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘২০১৯ সালে ভারত অপ্রত্যাশিত মন্দার সম্মুখীন হয়েছে। গত বছর প্রবৃদ্ধির হার ৪ শতাংশ হলেও ২০২০ সালে ৫ দশমিক ৮ শতাংশ এবং ২০২১ সালে তা ৬ দশমিক ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে বলে আমরা আশা করছি। মন্দার অন্যতম কারণ নন-ব্যঙ্কিং প্রতিষ্ঠানগুলোর সসম্যার সম্মুখীন হওয়া।’

আইএমএফের এমডি আরও বলেন, ‘ভারত এমন কিছু সংস্কার করেছে, যা দীর্ঘমেয়াদে দেশটির জন্য মঙ্গলজনক হবে। তবে কিছু স্বল্পমেয়াদী প্রভাবও রয়েছে। উদাহরণ হিসেবে এক কর ব্যবস্থা চালু করা এবং নোট বাতিলের ব্যাপারটি। দীর্ঘমেয়াদে লাভজনক হলেও তবে স্বল্পমেয়াদে অবশ্যই এসব দেশটির অর্থনীতিতে কিছুটা ব্যঘাত ঘটিয়েছে।’

ভারতের কেন্দ্রীয় বাজেট পেশের একদিন আগে গতকাল বৈশ্বিক ঋণপ্রদানকারী সংস্থা আইএমএফ এর ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা বললেন, ভারতে অনেক অর্থনৈতিক জায়গা নেই। তার কথায়, তবে আমরা এও জানাচ্ছি যে, সরকারের তরফে করা পদক্ষেপ দূরদর্শী। আমাদের দেখতে হবে বাজেট কী হয়, আগামিকাল বাজেট পেশ হবে।

মোদির আমলে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির হার ৮ দশমিক ২ এর পর ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তা কমে ৭ দশমিক ২ শতাংশে দাঁড়ায়। এরপরের বছর আরও নেমে হয় ৬ দশমিক ৮ শতাংশ। গতকাল দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার সংশোধন হিসাবে জানিয়েছে, ওই দুই বছর প্রবৃদ্ধির হার ছিল যথাক্রমে ৭ দশমিক ১ শতাংশ ও ৬ দশমিক ১ শতাংশ।

ভারত সম্পর্কে আইএমএফ’র ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে বলে জানিয়েছেন আইএমএফ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জিওরজিভা। তিনি বলেছেন, ভারতের বর্তমান আর্থিক মন্দাকে বিপর্যয় বলা যায় না।’ ভারতের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘না…আপনারা সেখান থেকে অনেকটা দূরে। তবে এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ মন্দা, বিপর্যয় নয়।’


এখানে শেয়ার বোতাম