বুধবার, এপ্রিল ১৪
শীর্ষ সংবাদ

‘ব্রডের ১৫ রানে ৮ উইকেট কোন পিচে ছিল’

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: চেন্নাইয়ে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে স্পিন ঘূর্ণি সামলে উঠতে পারেনি ইংল্যান্ড। প্রথম টেস্টে জয় পাওয়া সফরকারী দল আক্সার প্যাটেল ও রবিশচন্দন অশ্বিনে ধসে গিয়েছির। ওই ম্যাচে হারের পর জো রুট সরল পথে হেঁটেছিলেন। উইকেট নয় বরং ব্যাটিং ব্যর্থতার ওপর দোষ চাপিয়েছিলেন।

কিন্তু গোলাপি বলে দিবা-রাত্রীর টেস্টে ভারতের কাছে আহমেদাবাদে প্রায় দেড় দিনে হেরে বসেছে ইংল্যান্ড। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে ১০০ বছরের মধ্যে এমন বাজে হারের স্বাদ নিয়েছে ইংল্যান্ড। দুই ইনিংসে ভারতের গোলাপি বলের ঘূর্ণিতে লজ্জায় ডুবেছে।

এরপর আর উইকেটের দোষ না দিয়ে পারছেন না ইংলিশ অধিনায়ক রুট। ম্যাচ শেষে তাই একটু গরল মিশিয়ে বলেছেন, ‘যে উইকেটে আমি ৮ রানে ৫ উইকেট পাই, সেটা কি উইকেট বুঝতেই পারছেন।’ এরপর উইকেট নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অ্যালিস্টার কুক, রবিন পিটারসন, মাইকেল ভনরা।

বিশেষ করে কোহলির উদ্ধৃতি ধরে, ‘ব্যাট করার জন্য উইকেট বেশ ভালোই ছিল। বিশেষ করে প্রথম দুই ইনিংসে।’ কোহলির ওই বক্তব্য ধরে কুক বলেছেন, ‘বলতে শুনলাম, এই উইকেট ভারতের অনেক উইকেটের চেয়ে ভালো। কথা সত্য। অনেক বলই সোজা এসেছে। কিন্তু সেগুলো টার্ন করেছে, একমাইল টার্ন করেছে। মারাত্মক স্কিড করেছে। বিরাট কোহলি বিসিসিআইয়ের মতো করে উইকেটের ঢাল ধরেছেন।’

এমনকি ভারতের সাবেক ক্রিকেটার যুবরাজ সিংও উইকেট নিয়ে কথা বলেছেন। উইকেটের দিকে আঙুল তুলেই টুইট করেছেন, ‘এমন উইকেট পেলে অনিল কুম্বলে এক হাজার এবং হরভজন সিং ৮শ’ উইকেট পেতেন।’ তবে সবার মন্তব্যের জবাব এক কথায় দিয়ে দিয়েছেন সাবেক ভারতীয় স্পিনার প্রজ্ঞান ওঝা।

তিনি ভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘কেউ একটু স্টুয়ার্ড ব্রডের ১৫ রানে ৮ উইকেট পাওয়া নিয়ে কথা বলবেন প্লিজ (২০১৫ সালে নটিংহ্যামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে)। সেটা কেমন উইকেট ছিল? যদি কোন পেস বান্ধব উইকেটে দুই-তিনদিনে টেস্ট শেষ হয়ে যায়, উইকেটে প্রচুর ঘাস থাকে তারপরও সেটা ঠিক আছে। কিন্তু বল যদি (স্পিন উইকেটে) টার্ন করা শুরু হয়, ওমনি ধ্বনি উঠে যায়, এটা পাঁচদিনের উইকেট নয়।’

ওঝার মতে, টেস্ট ক্রিকেটের সংজ্ঞা হলো, যেকোন কন্ডিশনে আপনাকে পরীক্ষা দিতে হবে। পেস সহায়ক উইকেটে পরীক্ষা দিতে হবে, আর স্পিন পিচে পরীক্ষা দেওয়া লাগবে না, এমন কিছু লেখা নেই। এছাড়া সাবেক ভারতীয় স্পিনারের মতে, অশ্বিন এবং আক্সার লাইন-লেন্থ মেনে ধারাবাহিক বল করে গেছেন। উইকেটেরে লাইনে বল করেছেন ইংল্যান্ড দল তা সামলাতে পারেনি।


এখানে শেয়ার বোতাম