শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

বীরাঙ্গনার খেতাব পেতে জালিয়াতি, আ.লীগ নেত্রী বহিষ্কার

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 10
    Shares

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:: জালিয়াতির মাধ্যমে বীরাঙ্গনা খেতাব পেতে আবেদন করায় জয়পুরহাট সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আছমা বিবিকে দলের সকল পদ থেকে বহিষ্কার করেছে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ। জয়পুরহাট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেবেকা সুলতানা ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজা মন্ডল রীনা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। গত ১৮ সেপ্টেম্বর স্বাক্ষরিত বহিষ্কার সংক্রান্ত প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের হাতে আসে।

এতে উল্লেখ করা হয়, বয়স, জন্ম নিবন্ধন, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের দেয়া সনদ জালিয়াতির মাধ্যমে বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার জন্য জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলে আবেদন করেন আসমা বিবি। জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করা প্রকৃত বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধাদের হেয় প্রতিপন্ন করার তার এমন ঘৃণ্য অপচেষ্টা সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা পদসহ সংগঠনের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে আসমাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হলো।

জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধের সময় আছমা বিবি ছিলেন ৫ বছরের শিশু। কিন্তু স্বাধীনতার প্রায় ৫০ বছর পর তিনি ওই সময় ২১ বছর বয়সী তরুণী ছিলেন বলে দাবি করেন এবং এ ব্যাপারে একাধিক সনদ ও প্রত্যয়নপত্র জাল করে বয়স বাড়িয়ে তিনি বীরাঙ্গনা খেতাব নেয়ার জন্য আবেদন করেন জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলে। এ নিয়ে গেজেটভুক্তির সুপারিশও করেন উপজেলার সরকারি পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি।

এ নিয়ে গত ৭ সেপ্টেম্বর ‘বীরাঙ্গনার খেতাব নিতে আ.লীগ নেত্রীর যত কাণ্ড!’ শিরোনামে জাগো নিউজে সংবাদ প্রচার হয়। এতে ভেস্তে হয়ে যায় আছমা বিবির বীরঙ্গনা হওয়ার স্বপ্ন। আছমার প্রতারণার সত্যতা পাওয়ায় তাকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পদ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেবেকা সুলতানা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সোলায়মান আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 10
    Shares