শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭
শীর্ষ সংবাদ

বিষ বৃক্ষের গোঁড়া অক্ষত রেখে পাতা ছেঁটে ফেলে সমস্যার সমাধান আসবে না: রাজেকুজ্জামান রতন

এখানে শেয়ার বোতাম

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন বলেছেন, জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পড়াশুনা করা ছাত্ররা জনগণ ও দেশের সমস্যায় কতটা ভূমিকা পালন করবে তা নিয়ে সচেতন করা নেতাদের কাজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু যখন দেখা যায় ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের নেতা ব্যাঙ্কের অংশীদার, বাড়ীর মালিক তখন ছাত্ররা কি শিখবে? কাদের সংস্পর্শে এসে রিক্সায় চড়ে চলাফেরা করা ছাত্র চকচকে গাড়িতে চড়ে মধুতে আসে? বুধবার দুপুরে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন ।

তিনি বলেন, কোন সুতার টানে পুতুল নাচে তা না দেখলে শুধু পুতুল পালটালে নাচ বন্ধ হবে না। ছাত্র নেতাদের কাছ থেকে ছাত্র সমাজ পাবে শিক্ষা ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পথ নির্দেশনা। ।

বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, সব সহ্য করার দেশে মাঝে মাঝে একটু আলোড়ন সৃষ্টি হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের সঙ্গে ফেয়ার শেয়ার নিয়ে দরকষাকষির ঘটনা সমাজের নৈতিক বোধ যতটুকু অবশিষ্ট আছে তাতে কিছুটা আঘাত করেছিল। ভাবমূর্তি রক্ষায় জিরো টলারেন্স দেখাতে শোভন ও রব্বানিকে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া এখন একটি আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, একজন সাধারণ মানের ছাত্র কোন যাদুর কাঠির ছোঁয়ায় ছাত্র নেতা থাকা অবস্থায় বাড়ি গাড়িসহ বিত্ত বৈভবের মালিক হতে পারেন। ভিসিরাও কেন তাদের সাথে উন্নয়ন কাজ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন। তাদের গাড়ির সামনে পিছনে মোটর সাইকেল বহর থাকে? এসব প্রশ্নের এক কথায় উত্তর হলো ক্ষমতা। শিক্ষা নীতি কতটা সাধারণ মানুষের সন্তানের শিক্ষার অধিকারের স্বীকৃতি দিচ্ছে, কতটুকু অধিকার কেড়ে নিচ্ছে, বাজেটে শিক্ষার বরাদ্দ কি হওয়া উচিত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ কতটা গণতান্ত্রিক, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড কতটা বিস্তৃত তা নিয়ে আলোচনা ও আন্দোলন করা ছাত্র সংগঠনের কাজ হওয়ার কথা ছিল।

তিনি আরো বলেন, আজ তাদের দুর্নীতির জন্য তারা অভিযুক্ত কিন্তু কেমন করে তাদের এই পরিবর্তন হলো? লুটপাট- দুর্নীতি যখন যোগ্যতা তখন সেই রাজনীতি ধারণ করে কেমন করে ছাত্র নেতা নিজেকে সংযত রাখবে? বিষ বৃক্ষের গোঁড়া অক্ষত রেখে পাতা ছেঁটে ফেললে সমস্যা থেকে দৃষ্টি ফেরানো যাবে কিন্তু সমাধান আসবে না।


এখানে শেয়ার বোতাম