রবিবার, নভেম্বর ২৯

বার কাউন্সিলের পরীক্ষা পদ্ধতি সংস্কারসহ ৪ দফা দাবি

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: আইন স্নাতকদের শিক্ষানবিশকাল ৬ মাস থেকে বাড়িয়ে এক বছর মেয়াদী করার দাবি জানিয়েছে আইনজীবী সনদ অধিকার আন্দোলন। একইসঙ্গে বার কাউন্সিলের আইনজীবী সনদ পাবার জটিল ও সময়সাপেক্ষ তিন ধাপের প্রক্রিয়া সংস্কার করে দ্রুত ও সৃজনশীল উপায়ে বছরে দু’বার পরীক্ষা আয়োজনের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

আজ (৩১ অক্টোবর) শনিবার বেলা ১২টায় রাজধানীর মুক্তিভবনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

আইনজীবী সনদ অধিকার আন্দোলনের সদস্য সচিব কফিল উদ্দিন মোহাম্মদের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনটির আহ্বায়ক শিক্ষানবিশ আইনজীবী সুজন বিপ্লব। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক শিক্ষানবিশ আইনজীবী রুমি আক্তার, দীপক শীল, সদস্য মহিউদ্দিন রুমি, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাড. এম এ তাহের, অ্যাড. আইনুন নাহারসহ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে চার দফা দাবি জানানো হয়। দাবিগুলো হলো, বার কাউন্সিলের জটিল ও সময়সাপেক্ষ তিন ধাপের পরীক্ষা বাতিল করে সৃজনশীল পদ্ধতিতে বছরে দুবার সনদ পরীক্ষা আয়োজন এবং উপজেলা আদালত চালুর সঙ্গে সঙ্গে ত্রুটিপূর্ণ গ্রাম আদালতের বিচার প্রক্রিয়া সংস্কার করে বিচারক ও আইনজীবী নিয়োগের ব্যবস্থা করা। আইন স্নাতকদের শিক্ষানবিশকাল বর্তমান ৬ মাস থেকে বাড়িয়ে এক বছর করা। ইউজিসি ও বার কাউন্সিলের সমন্বয়ের মাধ্যমে নির্দিষ্ট মেয়াদে আইনে স্নাতক পর্যায়ে ছাত্র সংখ্যা নির্ধারণ অথবা পৃথক বিশেষ প্রতিষ্ঠান গঠনের মাধ্যমে ছাত্র সংখ্যা, সিলেবাস ও পেশাগত সংকট নিরসনের ব্যবস্থা করা। আদালতে মামলা পরিচালনায় নির্দিষ্টস্তর পর্যন্ত শিক্ষানবিশ আইনজীবীর অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করাসহ তাদের ন্যূনতম শিক্ষানবিশকালীন সম্মানী ফি নির্ধারণ করা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বিদ্যমান সনদ পরীক্ষা পদ্ধতির মাধ্যমে শিক্ষানবিশদের আইন পেশা থেকে সরিয়ে দেয়া হচ্ছে। বার কাউন্সিলের নিয়মিত পরীক্ষা গ্রহণ করতে না পারার ব্যর্থতায় অনেক আইন শিক্ষার্থীর আইনজীবী হয়ে মানুষের সেবা করার স্বপ্ন ভেঙে যাচ্ছে। সংকট উত্তরণে বিদ্যমান পরীক্ষা পদ্ধতি সংস্কারের বিকল্প নেই। এর বিকল্প হিসেবে শিক্ষানবিশকালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, সেমিনার ও অ্যাসাইনমেন্ট আয়োজনের মাধ্যমে সৃজনশীল পরীক্ষা পদ্ধতি প্রবর্তন করে আইনজীবী সনদ প্রদান করার প্রস্তাবনা তুলে ধরেন নেতৃবৃন্দ।

এসব দাবি আদায়ে সংগঠনটি দুই মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করে।

কর্মসূচিগুলো হলো– ১ নভেম্বর অ্যাটর্নি জেনারেল ও বার কাউন্সিল চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি প্রদান; ১ থেকে ১৫ নভেম্বর দাবি পক্ষ পালন; ১৬ থেকে ৩০ নভেম্বর সাংগঠনিক পক্ষ পালন; ২৬ ডিসেম্বর ঢাকায় জাতীয় কনভেনশনের আয়োজন; একই মাসে শীর্ষ আইনজীবী ও আইনজীবী নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে জাতীয় গোলটেবিলের আয়োজন।


এখানে শেয়ার বোতাম