Home মতামত সোস্যাল মিডিয়া বাবার চিকিৎসার জন্য একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের আকুতি

বাবার চিকিৎসার জন্য একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের আকুতি

অধিকার ডেস্ক:: মুক্তিযোদ্ধা বাবার চিকিৎসা ও জরুরি অপারেশন করাতে না পেরে রাসেল আহমেদ নামের একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান চিকিৎসা নিতে গিয়ে নানা হয়রানির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চেয়ে আবেদন করেছেন। ফেসবুকে দেওয়া আবেদনটি হুবহু নিম্নে দেওয়া হল

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আসসালামু আলাইকুম,

আমি রাসেল আহমেদ, ৩৪ তম বিসিএস এর মাধ্যমে সবুজবাগ সরকারি কলেজ, ঢাকাতে মার্কেটিং বিভাগে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত আছি। মোবাইল: 01915-721868, 01780-161148

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে আমার দাদা এবং মেঝো কাকা রাজাকারদের হাতে নির্মমভাবে শহীদ হয়েছেন, এছাড়াও আমার বাবা মুক্তিযুদ্ধের সময় সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে পাকিস্তানি ও দেশীয় দোসরদের হাত থেকে এদেশকে মুক্ত করেন। আমার বাবা শুধু একজন মুক্তিযোদ্ধাই ছিলেন না উনি দীর্ঘ ৪০ বছর দেশ গড়ার কারিগর হিসেবে শিক্ষকতা করে লাখো শিক্ষার্থীর স্বপ্ন পূরণের সহযোগী হিসেবে কাজ করে গেছেন।

দেশের সেই বীর সন্তান আমার বাবা এই স্বাধীনতার মাসে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরেন, সেজন্যই বিগত ২২ দিন যাবৎ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি হাসপাতাল) ইউরোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. গোলাম মাওলা চোধুরী স্যারের অধীনে ভর্তি ছিলেন, স্যারের নির্দেশনা অনুযায়ী তার শরীরের নানান পরীক্ষানিরীক্ষা করান। অবশেষে তার ডান কিডনিতে টিউমার ধরা পরে এবং সেটা ক্যান্সারে রুপান্তরিত হয়ে যায়। ডাক্তারের পরামর্শ ওনাকে যত দ্রুত সম্ভব অপারেশনের মাধ্যমে ডান কিডনি ফেলে দিতে হবে এবং তারপর পরবর্তী চিকিৎসা নিতে হবে তা না হলে ওনার জীবন খুব দ্রুতই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাবে। তার রুম নাম্বার-৪২৭ এবং বেড নাম্বার-১৭।

আমরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী অপারেশনের সকল প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। আমার বাবার রক্তের গ্রুপ B- নেগেটিভ, খুব কষ্টে রক্ত যোগার করেছিলাম,এখন যখন অপারেশনের জন্য সমস্ত কিছুর ব্যবস্থা হয়েছে কিন্তু ডাক্তার বলছেন তারা অপারেশন করতে পারবে না। বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এমনকি পিজি হাসপাতালের পরিচালক স্যার অনুরোধ করার পরেও আমার বাবার অপারেশন করাতে পারলাম না। অতপর বাধ্য হয়ে বাবাকে অপারেশন না করিয়েই গ্রামের বাড়ি নিয়ে আসতে হয়েছে।

এমতাবস্থায় অল্প কিছুদিনের মধ্যে জরুরীভিত্তিতে আমার বাবার অপারেশন যদি না করানো হয় তাহলে আমার বাবার জীবন মৃত্যু ঝুঁকির মধ্যে পরবে। আমার বাবার যদি কিছু হয়ে যায় তাহলে তার দায়ভার কে নিবে.?.

আমি চাই আমার বাবার অপারেশন যাতে খুব শীঘ্রই জরুরীভিত্তিতে যথাসময়ে করানোর ব্যবস্থা করা হয়, সে যেমন দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছে দেশকে স্বাধীন করেছেন, তাকেও যেনো সুস্থ জীবনের নিশ্চয়তা দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে পিজি হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট সকলের সহিযোগীতা কামনা করছি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের এই সংকটময় সময়ে আপনার কাছে যথাসময়ে আমার বাবার অপারেশনের ব্যবস্থা করার জন্য সহযোগিতা কামনা করছি। জাতির একজন বীর সন্তানকে তার ন্যায্য সেবা পাবার সুযোগ করে দিন।

ধন্যবাদ আপনাকে বিশ্ব মানবতার নেত্রী,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

করোনা আক্রান্ত দ্রুত বাড়ছে বাংলাদেশে, ঘরে থাকার বিকল্প নেই

অধিকার ডেস্ক:: দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। কয়েকদিন ধরে আক্রান্তের সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে। এ নিয়ে দেশজুড়ে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ।...

করোনা আতঙ্কে এগিয়ে আসেনি কেউ, বাবার লাশ কাঁধে নিল চার কন্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: করোনা ঠেকাতে ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। প্রতি মুহূর্তে বলা হচ্ছে, বাঁচতে হলে একমাত্র অস্ত্র সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। আর সেই সামাজিক...

মৌলভীবাজারে মৃত ব্যক্তির করোনা শনাক্ত, গ্রাম লকডাউ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের রাজনগরে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন এই তথ্যের...

করোনার সময়ে একদিনে ব্যাংকে এলেন আড়াই হাজার গ্রাহক

অধিকার ডেস্ক:: টাঙ্গাইলের ব্যাংকগুলোতেও ব্যাপক জনসমাগম। সামাজিক দূরত্বের ধার ধারছে না তারা। রোববার সকাল থেকে এমন চিত্র দেখা গেছে সোনালী ব্যাংক টাঙ্গাইল...