শনিবার, নভেম্বর ২৮

বানিয়াচং’য়ে নৌকা বাঁধাকে কেন্দ্রকরে এক বৃদ্ধা নিহত

এখানে শেয়ার বোতাম

তৌহিদুর রহমান পলাশ, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলা সদরের ৩ নং দক্ষিন-পূর্ব ইউনিয়নের দেশমূখ্য পাড়ায় বাড়ির সামনে ডিঙ্গি নৌকা বাঁধাকে কেন্দ্র করে, আজ ২২জুলাই বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় প্রতিবেশীর হামলায় কমলা বিবি (৫৫) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। তিনি উক্ত এলাকার মৃত আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় বাড়ির সামনে প্রতিবেশী উজ্বল মিয়া নৌকা বাঁধতে আসে, নিহত বৃদ্ধা কমলা বিবির পুত্রবধূ জমিলা খাতুন (৩৫) উজ্জল মিয়াকে নৌকাটি অন্যত্র সরিয়ে বাঁধতে বললে উজ্জল মিয়া জোর করেই নৌকা বেঁধে রাখে। এবং কুতর্কে লিপ্ত হয় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উজ্জ্বল মিয়াসহ তাহার পক্ষের লোক জন লুকু মিয়া, উজ্জ্বল মিয়া ও কদ্দুস মিয়া জমিলা খাতুনকে মারপিট করে আহত করে।

এ সময় কমলা বিবি পুত্রবধূকে রক্ষায় এগিয়ে আসলে লুকু মিয়ার লোকজন বৃদ্ধাকে ধাক্কা মেরে মাঠিতে ফেলে দিয়ে কিল-ঘুষি মারতে থাকে। এতে করে কমলা বিবি অজ্ঞান হয়ে পড়লে, গুরুতর আহত অবস্থায় বানিয়াচং স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

ঘটনার খবর পেয়ে বানিয়াচং থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে লাশ ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

এ ব্যাপারে নিহত কমলা বিবির ছেলে এনায়েত হোসেন জানান, আমার প্রতিবেশি লুকু মিয়া ও তার লোকজন সামাজিক বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। তাহারা অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির লোক। তারা প্রতিনিয়ত আমাদের সাথে অল্পতেই ঝগড়াঝাটিতে লিপ্ত হতো, যা ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সহ এলাকার গন্যমান্য অনেকেই অবগত আছেন, ওরা সবাই মিলে পরিকল্পিতভাবে আমার মা‘কে হত্যা করেছে, আমি এর সঠিক বিচার চাই।

বানিয়াচং থানা ইনচার্জ এমরান হোসেন’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান নিহতের গায়ে আঘাতের কোন চিহ্ন পাওয়া যায় নি, মৃত্যুর সঠিক কারন জানতে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরন করা হয়েছে। তবে এ ঘঠনার এখন পযর্ন্ত কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।


এখানে শেয়ার বোতাম