সোমবার, মার্চ ১
শীর্ষ সংবাদ

বাংলাদেশের এই ড্র জয়ের সমান

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: কলকাতার সল্ট লেক স্টেডিয়ামে সাদউদ্দিনের গোলে প্রথমার্ধে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ম্যাচের ৪২ মিনিটের মাথায় জামাল ভূঁইয়ার ফ্রি কিকে হেড করে গোল করে সাদ। বাংলাদেশ এগিয়ে যায় ১-০ ব্যবধানে। স্তব্ধ হয়ে যায় সল্ট লেক স্টেডিয়াম। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে আদিল খানের গোলে সমতায় ফেরে ভারত। জয়ের সুবাস পাওয়া বাংলাদেশ সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে। তবে জেমি ডের শিষ্যরা ভক্তদের মন জয় করেছেন।

কলকাতায় ৩৪ বছর পরে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ এবং ভারত। দুই বাংলার ম্যাচে পরিণত হয়েছিল লড়াইটি। যুব ভারতীর ৮৫ হাজার দর্শক ধারণক্ষম এই স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ ছিল। তাতে ভারতের দর্শক বেশি বলার অপেক্ষা রাখে না। সাদউদ্দিনের গোল করে তাই প্রথমার্ধে হৃদয় ভাঙেন ভারতীয় ভক্তদের। তবে শেষটায় জয় বঞ্চিত হওয়ার হৃদয় ভেঙেছে লাল-সবুজের ভক্তদের।

বাংলাদেশের চেয়ে ফিফা র্যাংকিংয়ে যোজন এগিয়ে ভারত। বাংলাদেশ যেখানে আছে ১৮৭ অবস্থানে। ইগার স্টিমাকের ভারত সেখানে ১০৪ অবস্থানে। তারপরও পুরো ম্যাচে সমানে সমানে লড়ে গেছে বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়াদের এ ম্যাচে ভরসা ছিল মুখোমুখি লড়াইয়ে আগের দুই ম্যাচের ফল। ওই দুই ম্যাচেই ভারতকে রুখে দেয় বাংলাদেশ। এবার গল্পটা ভিন্নভাবে লেখার সুযোগ পেয়ে যান সাদ-জীবনরা। কিন্তু রহস্য গল্পের মতো হুট করেই শেষে এসে বদলে গেল চিত্রনাট্য।

কাতার ম্যাচের মতো বাংলাদেশ এ ম্যাচেও গোল করার দারুণ কিছু সুযোগ পায়। কিন্তু সুযোগগুলো নিতে পারেনি। সে তুলনায় ভারত খুব একটা সহজ সুযোগ পায়নি। তবে ম্যাচের ৬০ মিনিটে গোলের খুব কাছে চলে গিয়েছিল স্বাগতিকরা। থাপার কর্ণার থেকে আনাস ভালো এক হেড দেন। সেটা অবশ্য গোলের একদম কাছ থেকে হেড করে ফেরান ইব্রাহিম।

ঠিক একই রকম এক সুযোগ ম্যাচের ৭৩ মিনিটে পায় বাংলাদেশ। গোলরক্ষককে দর্শক বানিয়ে গোলের দিকে বাংলাদেশ স্ট্রাইকার জীবন বল ঠেলে দেন। কিন্তু গোল করে যে আদিল খান ভারতকে বাঁচিয়েছেন তিনিই ঠিক গোল লাইন থেকে বলটি বিপদ মুক্ত করেন। বাংলাদেশ ফুটবলার থেকে ভক্তদের মধ্যে তখন আক্ষেপ। গোল লাইন অতিক্রম করেছে কি-না সেই প্রশ্ন! ম্যাচে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা আরও বেশ ক’বার ভারতের বক্সে ভয় ধরিয়েছে। কিন্তু ম্যাচের ভাগ্যে হয়ত সমতাই লেখা ছিল।


এখানে শেয়ার বোতাম