মঙ্গলবার, মে ১৮
শীর্ষ সংবাদ

বাঁশখালীতে শ্রমিক হত্যার জন্য ভাত ও ভোটের অধিকার হরণকারী সরকার দায়ী: ছাত্র ইউনিয়ন

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 52
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: বকেয়া বেতন পরিশোধ, বেতন বৃদ্ধি, রমজানে ইফতারের ব্যবস্থা করাসহ বিভিন্ন দাবিতে বিক্ষোভরত চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে অবস্থিত নির্মাণাধীন কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৫ শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছে আওয়ামীলীগের পেটুয়া পুলিশ বাহিনী। আহত হয়েছেন অসংখ্য শ্রমিক। এই ঘটনায় বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সংসদ তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয় ও সহকারী সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈম এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে আওয়ামীলীগ জোর করে ক্ষমতায় টিকে আছে। ৬১ শতাংশ ব্যবসায়ী নিয়ে সরকার গঠনকারী দলটি ব্যবসায়ীদের এজেন্ডা বাস্তবায়নকারীরূপে আবির্ভূত হয়েছে। দেশী-বিদেশী বেনিয়াদের সর্বোচ্চ মুনাফা নিশ্চিত করতে তারা দেশের মানুষের বুকে গুলি চালাতেও কুন্ঠা বোধ করছে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, এস আলম গ্রুপ ও চীন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সেপকো থ্রি’র মালিকানাধীন নির্মানাধীন এই কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ শুরু করার আগেই এর ভয়াবহতা উপলব্ধি করে তার বিরোধীতা করেছিলেন স্থানীয় মানুষজন। ২০১৬ সালে সেই বিক্ষোভ দমাতে ৬ জন মানুষকে গুলি করে হত্যা করেছিলো এই একই সরকারের পেটুয়া বাহিনী। ৫ বছর পরে এসে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আমাদের ক্ষুব্ধ করলেও অবাক করেনি। সকাল-সন্ধ্যা হাড়ভাঙা খাটুনির পরও ন্যায্য মজুরি যে শ্রমিক পায় না, তাকে তাঁর অধিকারের কথা, পাওনার কথা বলতে দিতেও নারাজ এই সরকার।

সরকারকে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের ইতিহাসকে স্মরণ করার তাগিদ দিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে গোটা দেশের অর্থনীতিকে যে শ্রমিকরা টিকিয়ে রেখেছেন তাঁদের উপর গুলি চালানোর পরিণাম কোনোভাবেই সুখকর হবে না। শ্রমিকদের ন্যায্য পাওনা বুঝিয়ে দিয়ে, তাঁদের সকল দাবি-দাওয়া মেনে নিয়ে এই হত্যার বিচার করতে আওয়ামীলীগ সরকার অতীতের মত টালবাহানা করলে এই দেশের মানুষই একদিন তার বিচার করবে।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন মনে করে জনগণের উপর দমন-পীড়ন জারি রেখে ক্ষমতা সুসংহত রাখবার দিন ফুরিয়ে এসেছে। জনসমুদ্রের ঢেউ এই স্বৈরাচারী শাসন ব্যবস্থাকে ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ করতে ভুল করবে না। ছাত্র ইউনিয়ন বাংলাদেশের শ্রমিক, কৃষক, ছাত্র, জনতা ও সকল মেহনতি মানুষের প্রতি সেই সংগ্রামের আহ্বান রাখছে।

 


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 52
    Shares