শনিবার, জানুয়ারি ২৩

বরিশালে এবার ‘মানবতার কৃষি’ উদ্বোধন, পতিত জমি সবুজে ভরে উঠবে

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 472
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক:: ‘বরিশালের কোন জমিই থাকবে না পতিত, সবুজে সবুজে ভরে উঠুক প্রতিটি আঙ্গিনা’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে উদ্বোধন করা হলো ‘মানবতার কৃষি’। বাসদ এর ‘এক মুঠো চাল’ কর্মসূচির ৫০ দিন উপলক্ষে ১ লক্ষ ফল ও সবজী চারা বিতরণ ও রোপনের এই কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়।

আজ রবিবার (১৭ মে) সকাল ১১.৩০টায় ‘মানবতার কৃষি’ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন বাসদ বরিশাল জেলার আহ্বায়ক প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী, জেলা সদস্য মিথুন চক্রবর্তী, সন্তু মিত্র, ইমদাম, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সহসভাপতি মাফিয়া বেগম, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের মহানগরের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন আহমেদ।

এছাড়াও বাসদের খাদ্য সহায়তার অর্ধশত দিবস উপলক্ষে সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলন করা হয় এবং ৫০ শিশু পরিবারকে ১ মাসের খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়।

‘এক মুঠো চাল’ কর্মসূচির ৫০ দিন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাসদের সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী।

বাসদ আহ্বায়ক ইমরান হাবিব রুমন বলেন, এক মুঠো চাল কর্মসূচির আওতায় আমরা ত্রাণ দেয়ার কার্যকরী ও মর্যাদাপূর্ণ প্রক্রিয়া ্য়ঁ‘মানবতার কৃষি’ শুরু করেছিলাম। আজ এক মুঠো চাল কর্মসূচির ৫০তম দিন উপলক্ষে মানবতার বাজারে আমরা ৫০টি পরিবারের শিশুদের জন্য এক মাসের শিশুখাদ্য সরবরাহ করছি। একইসাথে ৫০তম দিন উদযাপনে আমরা ‘বরিশালের কোন জমিই থাকবে না পতিত, সবুজে সবুজে ভরে উঠুক প্রতিটি আঙ্গিনা’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে করোনা সংকট মোকাবেলায় আমাদের নতুন কর্মসূচি ‘মানবতার কৃষি’ উদ্বোধন করেছি।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি এই লকডাউনের সময়ে খাদ্যসংকট দূর করতে কৃষির কোন বিকল্প নেই। সে কারণে আমরা আমাদের মানবতার বাজার থেকে সাধারণ মানুষকে কৃষিতে উৎসাহিত করতে সবজি ও ফলজ বৃক্ষের লক্ষাধিক চারা ও বীজ বিনামূল্যে সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এমনকি কোন বাসায় পতিত জমি থাকলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে আমাদের ভলান্টিয়াররা সেই বাসায় গিয়ে চারা রোপন করে দিয়ে
আসবে। রাস্তার পাশে পতিত জমি থাকলে সেখানেও বিভিন্ন চারা রোপন করে দিয়ে আসবে।’

ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘আমরা মনে করি এই মহামারি প্রতিরোধে দুঃস্থ কর্মহীন মানুষের খাদ্যসংকট দূর করতে সরকারি রেশনিং নিশ্চিত করার কোন বিকল্প নেই। আমরা বাসদের পক্ষ থেকে একদিকে এই রেশনিং নিশ্চিত করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি। আরেকদিকে আমরা
আমাদের সর্বোচ্চ সামর্থ্য দিয়ে ও গণমানুষের সহায়তা নিয়ে লকডাউনে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়াবার চেষ্টা করছি।

ডা. মনীষা বলেন, করোনা মহামারি নিকট ভবিষ্যতে দূর হওয়ার কোন সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছেনা। সেকারণে আমাদের এই ত্রাণ সরবরাহ কর্মসূচি ‘মানবতার বাজার’ এবং ‘মানবতার কৃষি’ আমরা শেষ পর্যন্ত চালিয়ে নিয়ে যেতে চাই। আমরা আপনাদের মাধ্যমে বরিশাল ও সারাদেশের মানুষের কাছে আমাদের এ মানবিক আয়োজনে সাধ্যমত অংশগ্রহণ ও সহযোগিতা করার আহবান জানাচ্ছি।’

নেতৃবৃন্দ এক মুঠো চাল ও মানবতার বাজার থেকে ৫০ দিনে ১৫ সহস্রাধিক পরিবারকে খাদ্য সহায়তার জন্য যারা আর্থিকভাবে, বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে এবং স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে সহযোগিতা করেছেন এমন দেশে-বিদেশের মানবিক বন্ধুদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন এবং ভবিষ্যতে যতদিন সংকট থাকবে ততদিনই মানবতার বাজার ও মানবতার কৃষি’ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 472
    Shares