মঙ্গলবার, মার্চ ৯
শীর্ষ সংবাদ

বন্ধুত্ব রক্ষার নামে দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলী দিয়ে দেশ বিরোধী চুক্তি হচ্ছে : আনু মুহাম্মদ

এখানে শেয়ার বোতাম

বরিশাল প্রতিনিধি :: তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেছেন, সরকার বুঝতে পেরেছে দেশে এখন তাদের কোনো সমর্থন নেই। তাই ভারতকে পাশে পেতে তারা বন্ধুত্ব রক্ষার নামে দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলী দিয়ে দেশ বিরোধী বিভিন্ন চুক্তি করছে।

তিনি অভিযোগ করেন, এভাবে সরকার ভবিৎষতে সাম্প্রদায়িকতার পথ তৈরি করে দিচ্ছে। যার কারণে আজ দেশের মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বরিশাল নগরীর কির্তনখোলা মিলনায়তনে জাতীয় স্বার্থ বিরোধী পিএসপি-২০১৯ বাতিল করাসহ বিদেশি কোম্পানি নয়, জাতীয় সক্ষমতা অর্জনে বাপেক্সকে শক্তিশালী করার দাবিতে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা কমিটির বরিশাল বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব বলেন তিনি।

সংগঠনের বরিশাল বিভাগীয় কমিটি আয়োজিত এই প্রতিনিধি সভায় সভাপতিত্ব করেন বরিশাল জেলা কমিটির আহ্বায়ক কমরেড সাইদুর রহমান। এতে আরও বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় সদস্য কমরেড অধ্যাপক আব্দুস ছত্তার, অ্যাডভোকেট সোহেল আহমেদ, মনির উদ্দিন পাপ্পু, কমরেড হালিম, বিভাগীয় সদস্য দেওয়ান আব্দুর রসিদ নিলু, অধ্যাপক নৃপেন্দ্র নাথ বাড়ৈ, দুলাল মজুমদার, বরিশাল জেলা কমিটির সদস্য সচিব কমরেড শাহ আজিজ খোকন ও বাসদ নেতা মিঠুন চত্রবর্তী প্রমুখ।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, দেশে গ্যাস নেই এমন অজুহাতে সুন্দরবন ধ্বংসে রামপালে কয়লাভিত্তিক ও পাবনায় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হচ্ছে। বিদেশ থেকে এলএনজি (তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস) আমদানি করা হচ্ছে। অথচ সাগরের তেল-গ্যাস উত্তোলনে সরকার যে পিএসসি অনুমোদন দিয়েছে সেখানে গ্যাস রফতানির বিধান রাখা হয়েছে। এটি দেশের জনগণের সঙ্গে তামাশা।

তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী এতই দয়ালু যে আমরা তিস্তার পানি না পেলেও ভারতকে ফেনী নদীর পানি দিয়ে আসি। এটা ভারতের কাছে সরকারের নতজানু রাষ্ট্রনীতির বহিঃপ্রকাশ ছাড়া আর কিছুই না।

তিনি আরও বলেন, বিগত জোট সরকারের আমলে শেখ হাসিনা গ্যাস রফতানি বন্ধ রাখার ওয়াদা করে ক্ষমতায় এসেছেন। এখন নিজের ওয়াদার বরখেলাপ করে বিদেশিদের হাতে গ্যাস তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সরকার একদিকে বেশি দামে গ্যাস আমদানি করবে, অন্যদিকে নিজের দেশের গ্যাস বাইরে রফতানি করার চুক্তি করছে। সরকার মুখে বলে এক, আর করছে অন্য কাজ। এই হল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সরকার।


এখানে শেয়ার বোতাম