রবিবার, নভেম্বর ২৯

ফরিদপুরের মাদ্রাসা থেকে অপহৃত শিশু সরিষাবাড়ী থেকে উদ্ধার, আটক ২

এখানে শেয়ার বোতাম

জামালপুর প্রতিনিধি :: ফরিদপুর জেলার ভাংগা উপজেলার মাধবপুরের একটি মহিলা মাদ্রাসা থেকে অপহৃত শিশুকে জামালপুরের সরিষাবাড়ী থেকে তাদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার ১৬নভেম্বর দুপুরে উপজেলার চর আদ্রা গ্রাম থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া অপহৃত শিশু ফারজানা(৭) ভাংগা উপজেলার মাধবপুর এলাকার সুহেল মিয়ার মেয়ে। গ্রেফতার করা হয়েছে দুই অপহরণকারীকে। গ্রেপ্তারকৃত অপহরণ কারীরা হলো,একই জেলার ভাংগা উপজেলার চন্ডু দদি গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে হৃদয়(১৫),সদরদী থানার কাপুডিয়া গ্রামের ডাবলু মুন্সীর ছেলে ইমন মিয়া (১৫)।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে ,ফরিদপুরে ভাংগা উপজেলার মাধবপুর গ্রামের অপহৃত শিশু একটি মহিলা মাদ্রাসার ১ম শ্রেণীর ছাত্রী ফারজানা(৭)। গত ১৩ নভেম্বর সকাল ৭ টায় ভিকটিম ফারজানা কে তার মামী কলিতা বেগম মাদ্রাসায় রেখে যান। এক ঘন্টা পরে ৮টার দিকে হৃদয়(১৫) নামে ফারজানাকে তার মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়া মিথ্যা কথা বলে মাদ্রাসা থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ১৫ নভেম্বর শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে সরিষাবাড়ী উপজেলার চর আদ্রা গ্রামের সুজনের মোবাইল থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা মাধবপুর ফরজানার বাড়ীর পাশের এক বাসার মোবাইলে তার নিকট ফোন দিয়ে ফারজানার মুক্তির জন্য ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। তা না দিলে হত্যার হুমকি দেয়। ওই রাত সাড়ে ১০টার দিকে শিশুটির বিষয়টি ভাংগা থানায় ফারজানার মাতা কুলছুম বেগম বাদী হয়ে একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। যার -৭২০,তারিখ-১৫-১১-১৯।

এ প্রেক্ষিতে ভাংগা থানা পুলিশ বিভিন্ন থানায় তথ্য প্রদান করে অপহৃতাকে উদ্ধারে ভাংগা থানা থেকে মা সহ জামালপুরের সরিষাবাড়ী থানা পুলিশের এস আই আরিফুল ইসলাম আরিফ ও সঙ্গীয় পুলিশের সহযোগীতায় বিশেষ অভিযান শুরু করে।ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানার ওসি (তদন্ত) নিখিল চন্দ্র অধিকারী এর নেতৃত্বে বিশেষ যৌথ অভিযানিক দলটি তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে সরিষাবাড়ী থানা এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চর আদ্রা গ্রামের এলাকায় অবস্থান নেয়।ওই এলাকা থেকেই শনিবার দুপুরে অপহৃতা ১ম ছাত্রী ফারজানাকে উদ্ধারে পুলিশ হানা দিলে দুই অপহরণকারী সহ শিশু ফারজানা কে নিয়ে দৌড়ে পালাতে চেষ্টা করে। পরে পুলিশ দৌডিয়ে দুই অপহরনকারীকে গ্রেপ্তার অপহৃত ফারজানা কে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। দুই গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ভাংগা থানায় নিয়ে গেছে পুলিশ।


এখানে শেয়ার বোতাম