রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৮
শীর্ষ সংবাদ

প্রসঙ্গ ছাত্র রাজনীতি

এখানে শেয়ার বোতাম

সঙ্গীতা ইমাম ::

ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবিতে অনেককে সোচ্চার দেখছি। দেখে অবাক যেমন হচ্ছি, হচ্ছি আতঙ্কিতও। আমরা কি আমাদের জন্মভূমির ইতিহাস বিস্মৃত হয়েছি?

আমাদের এই দেশের সকল রাজনৈতিক নেতারই রয়েছে ছাত্র রাজনীতিতে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা। বঙ্গবন্ধু থেকে শুরু করে আজকের যত রাজনৈতিক নেতাকে আমরা পেয়েছি রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় তাঁদের প্রত্যেকেরই রাজনীতির হাতেখড়ি ছাত্র রাজনীতিতে। রাজনীতির ইতিহাসে যাঁদেরকে আদর্শ হিসেবে দেখা হয় তাঁদের অধিকাংশই ছাত্র রাজনীতির ঐতিহ্য ধারণ করেন।

আমাদের রাষ্ট্রভাষার আন্দোলনে ছাত্র রাজনীতির ভূমিকা কি আমরা ভুলে গেছি? স্বাধীনতা সংগ্রামের দীর্ঘ আন্দোলনে ছাত্র রাজনীতির ভূমিকা কি অস্বীকার করতে পারি আমরা? বাষট্টির শিক্ষা আন্দোলন, ঐতিহাসিক ছয় দফা, এগারো দফা, উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান- সব কি ইতিহাস থেকে মুছে ফেলতে চাই আমরা? তবে তো স্বাধীনতার ইতিহাসকে নতুন করে লিখতে হয়। মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রদের সংগঠিত ভূমিকা না থাকলে নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ আরো দীর্ঘ হতো।

আজ যদি ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করে দেয়া হয় তবে ভবিষ্যতের রাজনীতিক পাওয়া দুষ্কর হবে। ন্যায়ের পক্ষে যে কোন আন্দোলন সংঘটিত করা দুঃসাধ্য হবে। শুভ অশুভের দ্বন্দ্বে জিতে যাবে অশুভরাই।

ছাত্ররা রাজনীতি করবে। তাঁদের রাজনীতি হবে আদর্শভিত্তিক। তাঁরা শিক্ষার্থীদের স্বার্থে আন্দোলন করবে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য রাজনীতি করবে, রাষ্ট্রের কল্যাণের জন্য প্রয়োজনে পথে নামবে , অন্যায়ের প্রতিবাদে সোচ্চার হবে। কিন্তু করবে না রাজনৈতিক দলের লেজুড়বৃত্তি। জড়াবে না অনৈতিক স্বার্থের দ্বন্দ্বে। লোভ লালসার অশুভ চর্চা গ্রাস করবে না ছাত্র রাজনীতিকে। ছাত্র রাজনীতি হবে জাতীয় রাজনীতির পাঠশালা। হবে জাতীয় রাজনীতির বিবেক।

লেখক : সহ সাধারণ সম্পাদক, উদীচী, কেন্দ্রীয় সংসদ
(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


এখানে শেয়ার বোতাম