মঙ্গলবার, মে ১১
শীর্ষ সংবাদ

প্রণোদনার নামে কৃষকদের সাথে প্রহসন করছে সরকার : শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: প্রণোদনার নামে সরকার কৃষকদের সাথে প্রহসন করছে বলে মন্তব্য করেছেন সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্টের কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি কমরেড শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী এবং সাধারন সম্পাদক মনজুর আলম মিঠু। আজ গণমাধ্যমে দেওয়া এক যুক্ত বিবৃতিতে একথা বলেন।

তারা বলেন, কয়েকদিন আগে প্রধানমন্ত্রী মাত্র কয়েকজন পোষাক কারখানার মালিকদের জন্য ২% সুদে ৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছন। কিন্তু কোটি কোটি কৃষকের জন্য মাত্র ৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ সহায়তার ঘোষণা দেওয় হয়েছে, তাও আবার ৫% সুদে। প্রধানমন্ত্রী এই ঘোষণার মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন তার সরকার কৃষদের পক্ষে নয়, শিল্পপতিদের পক্ষে।

তারা বলেন, করোনা ভাইরাসের আক্রমনে গোটা দেশ কার্যত অচল।ক্ষুদ্র-মাঝারী-বৃহৎ সব ধরনের শিল্প উৎপাদন বন্ধ। ভয়ংকর পরিস্থিতির দিকে যাচ্ছে দেশ। এই অবস্থায় দেশের মানুষকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র কৃষি। সে কারনে এখন সরকারের চিকিৎসা পরবর্তী সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন কৃষিক্ষেত্রে।ইতিমধ্যেই সিলেট-সুনামগঞ্জ-কিশোরগঞ্জের হাওরাঞ্চলে ইরি-বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। যেকোন মুহুর্তে পাহাড়ি ঢল অথবা কাল বৈশাখী ঝড় হতে পারে। দ্রুত ফসল কাটা-মাড়াই প্রয়োজন। কিন্তু লকডাউনের কারনে ক্ষেতমজুররা যাতায়াত করতে না পারায় অনিশ্চিত হয়ে পরেছে ফসল কাটা-মাড়াই। হাওরাঞ্চলের উক্ত পরিস্থিতি মোকাবেলায় অতি দ্রুত প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার আয়োজন করে উত্তরাঞ্চল সহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্ষেতমজুরদের নিয়ে এসে ফসল কাটা-মাড়াইয়ের কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এ কাজে কৃষকদের প্রয়োজনীয় আর্থিক প্রণোদনা দিতে হবে। হাওরাঞ্চলের ধান কাটার পরে শুরু হবে যশোর-কুষ্টিয়া-খুলনা অঞ্চলে, তারপরেই বাংলাদেশের শস্যভাণ্ডার উত্তরাঞ্চলে। একই পদ্ধতিতে এইসব অঞ্চলেও ধান কাটা-মাড়াইয়ের কাজ করতে হবে।

তারা বলেন, দেশের সকল শ্রমজীবি এখন কর্মহীন, ব্যাবসা-বানিজ্য বন্ধ, কোন পরিবহণ চলছে না। ফলে ক্ষেতমজুর-শ্রমিক ও ছোট ব্যাবসায়ীদের জীবন দূর্বীসহ হয়ে উঠেছে, পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে-অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছে। অবিলম্বে এই মানুষদের ঘরে-ঘরে খাদ্যসামগ্রী না পৌঁছাতে পারলে বিপদজনক পরিস্থিতি তৈরী হবে। এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় স্বীকৃত উপায় হচ্ছে ঘরে থাকা, সচেতন থাকা এবং দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা। ঘরে-ঘরে খাদ্য পৌঁছাতে না পারলে স্বীকৃত কোন উপায়ই অবিলম্বন করা সম্ভব না।

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকার যথার্থ পদক্ষেপ গ্রহন না করায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে নেতৃবৃন্দ বলেন শুধুমাত্র লকডাউন, প্রতিদিন সামান্য কিছু মানুষকে টেষ্ট ও আইসোলেশনে রাখা সমাধান নয়। সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষকে করোনা টেষ্ট এবং আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা সহ সন্দেহভাজনদের আইসোলেশনে নিতে হবে। প্রত্যেক জেলা হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের টেষ্ট এবং আই সি ইউ-সি সি ইউ-ভেন্টিলেশনের আয়োজনসহ চিকিৎসা সেবা করতে হবে। ডাক্তার-নার্সসহ চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ব্যাক্তিবর্গ, আইন-শৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, ত্রান কাজে নিয়োজিত সেচ্ছাসেবীদের দক্ষতা বৃদ্ধি এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ কৃষিক্ষেত্র সহ দেশে বিরাজমান এই মুহুর্তের সংকট মোকাবেলায় নিম্নলিখিত দাবীসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান। একইসাথে দেশের সকল কৃষক সংগঠন, বাম প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনসমুহ সহ বিবেকবান মানুষদের উক্ত দাবীতে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান।

দাবীসমূহ::

১. ইরি-বোরো ধান কাটা-মাড়াইয়ের জন্য প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করে ক্ষেতমজুরদের যখন যেখানে প্রয়োজন সেখানে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নিতে হবে। কৃষকদের হাতে দ্রুত নগদ অর্থ সাহায্য হিসেবে প্রদান করতে হবে।

২. সরকারীভাবে ধানের দাম নির্ধারন করতে হবে। হাটে-হাটে ক্রয়কেন্দ্র খুলে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে সরকারি উদ্যোগে ধান ক্রয় করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্ত সবজি চাষীদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

৩. প্রত্যেক ক্ষেতমজুর-শ্রমিক-ছোট ব্যাবসায়ী সহ নিম্ন আয়ের মানুষদের আগামী ৩ মাসের খাদ্যসামগ্রী বিনামূল্যে সরকারীভাবে নিশ্চিত করতে হবে। অতি দ্রুত নুন্যতম ১ মাসের খাদ্যসামগ্রী ঘরে-ঘরে পৌঁছে দিয়ে সারাদেশ লকডাউন করতে হবে।

৪. প্রত্যেক জেলা হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা টেষ্ট করা, আই সি ইউ- সি সি ইউ-ভেন্টিলেশনের আয়োজনসহ আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে হবে।

৫. চিকিৎসক-নার্স সহ চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ব্যাক্তিবর্গ,আইন-শৃংঙ্খলা রক্ষাকরী বাহিনী এবং ত্রান কাজে নিয়োজিত সেচ্ছাসেবীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

৬. কৃষক, ছোট ও মাঝারী ব্যাবসায়ীদের স্বল্প সুদে সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করতে হবে। গরীব ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য পর্যাপ্ত পরিমান ১০ টাকা কেজি চাল সরবরাহ করা সহ স্থায়ীভাবে রেশন চালু করতে হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম