রবিবার, মার্চ ৭
শীর্ষ সংবাদ

পানি বন্টন ও গ্যাস রপ্তানিসহ সকল অসম চুক্তি বাতিল কর : গণসংহতি

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: তিস্তা-গঙ্গার পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় এবং ফেনী নদীর পানি বন্টন ও গ্যাস রপ্তানিসহ সকল অসম চুক্তি বাতিলের দাবি জানিয়েছে গণসংহতি আন্দোলন।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের প্রেক্ষিতে দুই দেশের মাঝে সম্পাদিত অনেকগুলো চুক্তির প্রতিক্রিয়ায় রোববার (৬ অক্টোবর) গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি ও ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, ভারতের সাথে করা উপকূলে নজরদারি, ফেনী নদীর পানি বন্টন ও গ্যাস রপ্তানিসহ অসম চুক্তি বাংলাদেশ রাষ্ট্রের স্বার্থের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ। সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো রাষ্ট্রের অর্থনীতি ও নিরাপত্তার ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হলেও এগুলো নিয়ে কোন পূর্ব আলোচনা দেশের মাঝে করা হয়নি। অতীতেও সম্পাদিত এই জাতীয় চুক্তিগুলো এমনকি জাতীয় সংসদেও আলোচিত হয়নি। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এসকল চুক্তি বাতিল করার আহ্বান জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, এসব চুক্তি জনগণের সাথে বিশ্বাসভঙ্গের সামিল।প্রধানমন্ত্রী তিস্তার পানি নিয়ে চুক্তি করতে পারেননি, রফতানী অসমতা নিয়ে কোন কূল-কিনারা করতে পারেননি, সীমান্ত হত্যা বন্ধে কোন বন্দোবস্ত করতে পারলেন না; মূলত তিনি জাতীয় সম্পদসহ দেশের স্বার্থ ভারতের হাতে তুলে দিয়ে আসলেন। দেশে তীব্র গ্যাস সঙ্কট চলছে। শিল্প-কারখানাসহ জাতীয় অর্থনীতি বহুঅর্থে ধুকছে। সরকার একদিকে গ্যাস সঙ্কটের কারণে গ্যাস ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে না। কিন্তু অন্যদিকে দিল্লী সফরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ভারতে তরল গ্যাস রপ্তানির চুক্তি করলেন; যা চূড়ান্তভাবে দেশের স্বার্থবিরোধী।

নেতৃবৃন্দ বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলে বাংলাদেশের নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডের নাানান তৎপরতা বিগত কয়েক বৎসরে সমুদ্র এলাাকার নিয়ন্ত্রণকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে এরকম কোন ঘটনার কথা জানা যায় না। তা সত্বেও ‘উপকূলীয় অঞ্চলে নজরদারিতে ভারতীয় সহযোগিতা’ নামে আসলে কী বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় ভারতের অনুপ্রবেশের বৈধ পথ নয় কি? সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য যে কোন উপায় অবলম্বনের যে পথ বেছে নিয়েছে- প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের চুক্তির মধ্য দিয়ে তা খুবই নগ্নরূপে প্রকাশিত হলো।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, জনগণের স্বার্থের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে কোন সরকারই দীর্ঘদিন তার শাসন চালাতে পারেনা। আর এভাবে ন্যাক্কারজনকভাবে দেশের স্বার্থ বিলিয়ে দিয়ে বর্তমান সরকার নিজেদের স্বৈরাচারী শাসনকেই আরো পাকাপোক্ত করছে। সরকারের স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলাই এ সময়ের দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক দলসমূহের কর্তব্য বলে নেতৃবৃন্দ মনে করেন।


এখানে শেয়ার বোতাম