শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

পাকিস্তানে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত বদলাচ্ছে না বাংলাদেশ

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: বাংলাদেশ এই মুহূর্তে পাকিস্তানে কিছুতেই টেস্ট খেলতে চায় না। কাল বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জানিয়ে দিয়েছেন, পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেললে সেটি হতে হবে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। কেন পাকিস্তানের মাটিতে বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে চায় না, সেটিরও বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি।

বিসিবি সভাপতির ব্যাখ্যার পরের দিন অর্থাৎ আজ পাকিস্তানি পত্রিকা ‘ডন’-এ খবর প্রকাশ হয়েছে, বিসিবির কাছে টেস্ট না খেলতে চাওয়ার ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছে পিসিবি। আজ সন্ধ্যায় যখন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরীকে জানানো হলো বিষয়টি, তিনি বললেন, ‘আমরা সব ব্যাখ্যা তো দিয়েই দিয়েছি। কাল বিসিবি সভাপতি এ নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছেন। নতুন করে আর কী ব্যাখ্যা দেওয়ার আছে!’

জানা গেছে, এই সফর নিয়ে বিসিবি তাদের অবস্থান পরিষ্কার করে তিন পৃষ্ঠার চিঠি পাঠিয়েছে পিসিবিকে। এত বড় ব্যাখ্যার পর এই মুহূর্তে নতুন করে কিছু বলার নেই বিসিবির। তবুও পাকিস্তানে বাংলাদেশ দলের সফর নিয়ে প্রতিদিনই কোনো না কোনো খবর আসছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমে। বাংলাদেশের ওপর চাপ তৈরি করতেই এ ধরনের খবর প্রকাশ হচ্ছে বলে মনে করেন বিসিবির নীতিনির্ধারকেরা।

এত দিন পাকিস্তানের মাটিতে শ্রীলঙ্কার পূর্ণাঙ্গ সফর করার কথাই বারবার সামনে এনেছে পিসিবি। নতুন করে তারা ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়া দলের পাকিস্তান সফরের কথা আনছে। বিসিবি অবশ্য পাল্টা উত্তরে বলছে, ২০২২ অনেক দেরি। ভবিষ্যতের কথা পরে, এখন বর্তমানে বেশি গুরুত্ব দিতে চায় তারা।

বিসিবির ভাবনাটা হচ্ছে, এখনই লম্বা সময়ে পাকিস্তান সফরে যেতে চায় না তারা। ভারী অস্ত্রে সজ্জিত কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্যে মনস্তাত্ত্বিকভাবে স্বচ্ছন্দবোধ না করার বিষয়টি বারবার আলোচনা হচ্ছে নিজেদের মধ্যে।

আর যে শ্রীলঙ্কার উদাহরণ দিচ্ছে পাকিস্তান, লঙ্কানরাও তো একবারে লম্বা সফর পাকিস্তানে করেনি। তারা ভেঙে ভেঙেই পাকিস্তানে গিয়েছে। তবুও পিসিবি দাবি করছে তারা বাংলাদেশের বিপক্ষে সব ম্যাচ নিজেদের দেশেই আয়োজন করতে চায়। বিসিবির কর্তারা মনে করছেন, বাংলাদেশ বলেই জোর করে বিষয়টি চাপিয়ে দিতে চাইছে পিসিবি। তবে তাঁরাও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড়। পাকিস্তানের মাটিতে প্রথমে টি-টোয়েন্টি খেলে বুঝতে চান, ভবিষ্যতে সেখানে টেস্ট খেলা যায় কি না।

শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি আয়োজনেই যদি সম্মত হয় পিসিবি, সে ক্ষেত্রে বিসিবি চাইবে সিরিজটা ইসলামাবাদ কিংবা রাওয়ালপিন্ডিতে যেন হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম