মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪

পদত্যাগ দাবিতে মাল্টার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ভূমধ্যসাগরে অবস্থিত দ্বীপরাষ্ট্র মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাটের কার্যালয় ঘেরাও করে ভেতরে প্রবেশ করেছে বিক্ষোভকারীরা। তারা প্রধানমন্ত্রীর তাৎক্ষণিক পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছেন। মূলত ২০১৭ সালে দেশটির এক অনুসন্ধানী নারী সাংবাদিকের হত্যাকাণ্ড নিয়ে ক্ষুব্ধ মানুষজন বেশ কিছুদিন ধরেই বিক্ষোভ করছেন।

সাংবাদিক ডাফনে কারুয়ানা গালিজার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দেশজুড়ে বিক্ষোভের প্রেক্ষিতে সাংবিধানিক ও রাজনৈতিক সঙ্কট তৈরি হওয়ায় গত ২ ডিসেম্বর পদত্যাগের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাট। তবে আগামী ১২ জানুয়ারি দলীয় প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করবেন। তারপর নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

কিন্তু তিনি জানিয়েছেন, আগামী ১২ জানুয়ারি ক্ষমতাসীন দল লেবার পার্টির প্রধান হিসেবে পদত্যাগ করবেন। এরপরই পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী বাছাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু করতে লেবার পার্টিকে আহ্বান জানাবেন। গত ২ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন চ্যানেলে দেয়া ভাষণে তিনি এই ঘোষণা দেন।

২০১৭ সালে সাংবাদিক ডাফনে কারুয়ানা গালিয়াজা গাড়িতে বোমা বিস্ফোরণ হলে তিনি নিহত হন। দেশটির প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছিলেন তিনি। তাই তার হত্যাকারীদের পুরস্কৃতও করা হয়। ডাফনের ছেলের দাবি, তার মায়ের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা জড়িত।

দুর্নীতির সেসব ঘটনা যাতে ফাঁস না হয় তাই সরকার ঘনিষ্ঠ এক ব্যবসায়ী এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করেন। আরও অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী মাসকাটের চিফ অব স্টাফও এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত। প্রধানমন্ত্রী মাসকাট ওই ঘটনার সমস্ত দায়ভার নিজের কাঁধে নিয়ে নতুন সরকারের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন।

ছয় বছর ধরে মাল্টার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মাসকাট। দুবার নির্বাচনে অংশ নিয়ে দুবারই বিপুল ব্যবধানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সবচেয়ে ছোট দেশটির প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন তিনি। তবে এই হত্যাকাণ্ডে তার প্রশাসনের সংশ্লিষ্টতা এবং তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলে তার পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ করছে দেশটির মানুষ।


এখানে শেয়ার বোতাম