বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৮

পত্রিকায় মতপ্রকাশ করায় ঢাবি শিক্ষককে অব্যাহতি, ছাত্র ফ্রন্টের নিন্দা

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 46
    Shares

ঢাবি প্রতিনিধি:: গত ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কর্তৃক প্রতিষ্ঠানটির মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানকে চাকরিচ্যুত করার সিদ্ধান্তকে সমালোচনা করেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নেতৃবৃন্দ।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে এই সিদ্ধান্তের প্রতি নিন্দা জানান বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন সুজন এবং সাধারণ
সম্পাদক রাজীব কান্তি রায়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হলো স্বাধীন চিন্তা ও মত প্রকাশের অন্যতম ক্ষেত্র। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সেটির স্ফুরণ ঘটিয়ে জ্ঞান জগতের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখেন।

তারা বলেন, ২০১৮ সালের ২৬ মার্চ জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত কলামের সূত্র ধরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানের বিরুদ্ধে সংবিধান অবমাননা এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করার অভিযোগে মামলা করে। এবং সম্প্রতি তাকে
শিক্ষকতা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এ ধরণের ঘটনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এক লজ্জাজনক ইতিহাস সৃস্টি করল। সারা দেশে শাসকদের নেতৃত্বে যেভাবে ভিন্নমতের উপর দমন-পীড়ন-নির্যাতন চলছে এবং কথিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে মানুষের চিন্তার স্বাধীনতাকে দমন করা হচ্ছে সে সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও ক্ষমতাসীন ফ্যাসিস্ট শাসকদের পদলেহী ভূমিকায়ই অবতীর্ণ হয়েছে। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণতান্ত্রিক পরিবেশ এবং স্বায়ত্বশাসন।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এ ধরণের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে ওই শিক্ষককে তার স্বপদে বহাল রাখার দাবি জানান। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা ও স্বায়ত্বশাসন রক্ষায় প্রগতিশীল শিক্ষক ও ছাত্রসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 46
    Shares