শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৬
শীর্ষ সংবাদ

নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত ক্যাসিনো, টেন্ডারবাজিসহ সব ধরনের দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী কাউকে ছাড় দিচ্ছেন না। দুর্নীতিবাজ, দখলবাজরা দুর্নীতি ও দখলের চিন্তা যত দিন করবে; তত দিন এই অভিযান চলবে।

শনিবার রাজধানীর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) আয়োজিত ‘সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার এগিয়ে চলছে’ শীর্ষক বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের নীতি ঘোষণা করেছে। সেই নীতিতে অটল থেকে অভিযানও অব্যাহত থাকবে। নতুন প্রজম্মকে মাদক থেকে দূরে রাখতে হবে। তারা আমাদের ভবিষ্যত। তারা যেন বিপথগামী না হয় সে ব্যাপারে সকলকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে।
তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘সবার সহযোগিতা পেলে সুশাসন শিগগিরই প্রতিষ্ঠিত করা যাবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বরতরা রুটিন মাফিক কাজ করে যাচ্ছে। ধীরে ধীরে এ লক্ষ্য বাস্তবায়ন হবে।’

সুশাসনের কারণে অসাল্ফপ্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ আমরা যখন নির্বাচনের মাধ্যমে সরকারের ক্ষমতায় আসি তখন দেশে পূজামণ্ডপ ছিল ৯ হাজার বা ১০ হাজারের মতো। বর্তমানে সে সংখ্যা ৩২ হাজারের কাছাকাছি। শুধু পূজামণ্ডপ নয়, দেশে এমন কোনো জেলা নেই, যেখানে বৌদ্ধ ধর্মের কোনো প্যাগোডা নেই।

তিনি বলেন, সব ধর্মের প্রতিনিধিরা নির্বিঘ্নে বাংলাদেশে থাকছেন। কে মুসলিম, কে হিন্দু, কে বৌদ্ধ, কে খ্রিস্টান, কে পাহাড়ি, কে নৃ- গোষ্ঠী আমরা তা দেখছি না। আমরা সকলে বাঙ্গালি। সবাই মিলেমিশে দেশকে এগিয়ে নিতে চাই।

ক্যাসিনো ও টেন্ডারবাজির পর কোন খাতে অভিযান পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কোনো সেক্টরকে আমরা লক্ষ্য করছি না। যেখানে অনিয়ম, দুর্নীতি ও আইন অমান্য হচ্ছে-সেখানেই বিশেষ নজরদারি করা হচ্ছে। আমরা কোনো এলাকাকে টার্গেট করছি না।’

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে বলেন, ‘ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এমন ঘটনায় আমরা বিস্মিত হয়েছি। যারা হত্যাকাণ্ডে জড়িত তারাও মেধাবী ছিল। মেধাবী ছাত্রগুলোর মেধা এভাবে বিকৃত হবে সেটি কারোর ধারণা ছিল না। এমন ঘটনায় ব্যথিত ও দুঃখিত। আবরার হত্যায় নির্ভুল চার্জশিট (অভিযোগপত্র) তৈরির ব্যবস্থা হচ্ছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শুধু দুঃখ প্রকাশ করিনি। সঙ্গে সঙ্গে সেই অপরাধীদেরও গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত চার্জশিট দেওয়া হবে। নির্ভুল একটা চার্জশিট যাতে যায়, সেই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে আমরা ন্যায্যবিচার পাবো।’


এখানে শেয়ার বোতাম