শনিবার, ডিসেম্বর ৫

নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বগুড়ায় বিক্ষোভ মিছিল

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 46
    Shares

বগুড়া প্রতিনিধি:: চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমানো, সারাদেশে অব্যাহত নারী-শিশু নির্যাতন-ধর্ষণ-গণধর্ষণ বন্ধ করা ও রাষ্ট্রীয় ২৫টি পাটকল বন্ধের গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার দাবিতে এবং ধর্ষণ বিরোধী চলমান লংমার্চের হামলার প্রতিবাদে বগুড়ায় বিক্ষোভ মিছিল।

আজ শনিবার (১৭ অক্টোবর) বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ বগুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে বেলা ১২:০০টায় বিক্ষোভ মিছিল ও সাতমাথায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাসদ বগুড়া জেলা শাখার আহবায়ক কমরেড অ্যাড.সাইফুল ইসলাম পল্টু, বক্তব্য রাখেন বাসদ বগুড়া জেলা সদস্যসচিব সাইফুজ্জামান টুটুল,সদস্য মাসুদ পাভেজ, শহিদুল ইসলাম, দিলরুবা নূরী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

কমরেড সাইফুল ইসলাম পল্টু বলেন, বর্তমানে করোনা মহামারী কালে দেশের মানুষের জীবন ও জীবিকা বিপন্ন। ঠিক এ সময়েই বাংলাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকল বন্ধ করে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলে প্রায় ৫০ হাজার শ্রমিক বেকার করে দিল বর্তমান সরকার। এই দুর্যোগে সারা দুনিয়ায় নানা প্রণোদনা দিয়ে মানুষের জীবিকা রক্ষার চেষ্টা চলছে, বাংলাদেশে সেখানে করোনা মহামারির সুযোগ নিয়ে সোনালী আঁশের ঐতিহ্যবাহী পাটকল বন্ধ করে দিল। তিনি অনতিবিলম্বে এই গণ বিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে, রাষ্ট্রীয় পাটকল আধুনিকায়ন, দুর্নীতি, লুটপাট বন্ধ, সরকারি-বেসরকারি নির্বিশেষে সকল পাটকলে নিম্নতম জাতীয় মজুরি নির্ধারণ এবং পাট খাত ধ্বংস ও দুর্নীতি লুটপাটের সাথে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান।

সমাবেশে অন্যন্য নেতৃবৃন্দ বলেন, পেঁয়াজ, চাল, ডাল, আলু, তেলসহ সকল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম কমানো, অসাধু সিন্ডিকেট ব্যবসায়ি ও মধ্যসত্বভোগীদের কবল থেকে বাজার মুক্ত করতে টিসিবি কার্যকরি করা, সরকারি বিপণন ব্যবস্থা চালু করে সকল দরিদ্র মানুষদের সারা বছর ন্যায্যমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহ করার দাবি জানান এবং সারাদেশে অব্যাহত নারী-শিশু ধর্ষণ-খুন-নির্যাতনের ঘটনায় গোটা জাতি স্তম্ভিত ও উদ্বিগ্ন। বর্তমান সরকারের আমলে খুন-ধর্ষণ অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়েছে। শাসক দলের আশ্রয়-প্রশ্রয়েই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে চলেছে। সেজন্য কখনো পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করে, কখনো মামলা হলেও বিচার প্রক্রিয়ার ও রায় বাস্তবায়নের দীর্ঘসূত্রিতার কারণে ধর্ষকেরা পার পেয়ে যায় । ফলে আসামীরা আরও উৎসাহিত হয়। নেতৃবৃন্দ দেশে বিচারহীনতার যে রেওয়াজ গড়ে ওঠেছে তা এবং বিচারের দীর্ঘসূত্রিতা দূর করে সকল ধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক সুষ্ঠু বিচার ও দ্রুত রায় বাস্তবায়নের আহবান জানান সেই সাথে ধর্ষণ বিরোধী লং মার্চে ফেনীতে হামলার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 46
    Shares