মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৯

নারায়ণগঞ্জের খানপুর কভিড হাসপাতালে দ্রুত ভেন্টিলেটারসহ আইসিইউ চালুর দাবি

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 307
    Shares

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:: খানপুর ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল বর্তমান কভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে পর্যাপ্ত জনবল বৃদ্ধি করে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদিসহ দ্রুত কার্যকর আইসিইউ এবং সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম চালু, টেস্টিং কীট ও বুথ বৃদ্ধি করে পর্যাপ্ত টেস্টের ব্যবস্থা করা এবং গণমুখী স্বাস্থ্যনীতি চালু ও আসন্ন বাজেটে স্বাস্থ্যখাতে পর্যাপ্ত বরাদ্দের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্যোগে আজ বিকাল ৩টায় করোনা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক দূরত্ব রক্ষা করে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বাসদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক নিখিল দাস, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক তরিকুল সুজন, বাসদ জেলার নির্বাহী ফোরামের সদস্য আবু নাঈম খান বিপ্লব, অঞ্জন দাস, বিমল কান্তি দাস, রাশিদা আক্তার।

নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা সংকটে দেশের স্বাস্থ্য খাতের দৈন্য দশা উন্মোচিত হয়েছে। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতে সরকার জিডিপির মাত্র শূন্য দশমিক ৪ শতাংশ ব্যয় করে। অথচ শ্রীলংকায় করে এক দশমিক ৬ শতাংশ, মালয়েশিয়া ২ শতাংশ এবং থাইল্যান্ড ৩ শতাংশ। এ খাতে ক্রয় সংক্রান্ত কার্যক্রমে কর্মকর্তা ও ঠিকাদারদের যতটা উৎসাহ, নাগরিক স¦াস্থ্য সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে তার কানাকড়িও দেখা যায় না। করোনা সংকট মোকাবিলায় সরকারের চরম সমন্বয়হীনতা প্রকাশ পেয়েছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, হটস্পট নারায়ণগঞ্জে করোনা রোগী ভয়াবহভাবে বাড়ছে। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৩৭০৫ জন ও মারা গেছে ৯০ জন। অথচ গত ৬ মে খানপুর ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে করোনা হাসপাতাল পিসিআর ল্যাব চালু হলেও এখনো ভেন্টিলেটরসহ কার্যকরভাবে আই. সি. ইউ. চালু করা হয়নি। জনবলের ঘাটতি ও সরঞ্জামাদির অভাব লক্ষণীয়। ১০ টি ভেন্টিলেটর অলসভাবে পড়ে আছে। এক্ষেত্রে সরকার ও তার সংশ্লিষ্ট দফতরের কোন পদক্ষেপ নেই। ফলে নারায়ণগঞ্জবাসী আই. সি. ইউ. সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সেন্ট্রার অক্সিজেন সিস্টেম না থাকায় অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে চালানো হচ্ছে। যেহেতু আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, সেহেতু অবিলম্বে টেস্টিং কীট ও বুথ বাড়িয়ে পর্যাপ্ত টেস্টের ব্যবস্থা করতে হবে।

এই করোনাকালে সাধারণ চিকিৎসাও রোগীরা পাচ্ছে না। নেতৃবৃন্দ খানপুর হাসপাতালে দ্রুত কার্যকর আই. সি. ইউ. চালু ও আসন্ন জাতীয় বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বাজেটের ১৫ ভাগ বরাদ্দের দাবি জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 307
    Shares