সোমবার, নভেম্বর ২৩

দেশে চরম ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন চলছে: নারায়ণগঞ্জে সমাবেশে রাজেকুজ্জামান রতন

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 311
    Shares

নারায়ণগঞ্জে বাসদের সমাবেশ ও লাল পতাকা মিছিল

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:: দেশে চরম ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন চলছে মন্তব্য করে বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি কমরেড রাজেকুজ্জামান রতন বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র আজ নির্বাসিত। প্রবল দুর্নীতি, লুটপাট, অনিয়ম এবং সরকারের গণবিরোধী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে যাতে কোন আন্দোলন গড়ে উঠতে না পারে তারজন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করে সাংবাদিকসহ অনেক মানুষকে জেলখানায় পুরে রেখেছে সরকার।

তিনি আজ শুক্রবার (২০ নভেম্বর) দুপুর ২ টায় দলের ৪০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ১০৩ তম বার্ষিকী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সমাবেশে এই মন্তব্য করেন।

বাসদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক জননেতা কমরেড নিখিল দাসের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের অন্যতম কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতা, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি শ্রমিক জননেতা কমরেড রাজেকুজ্জামান রতন।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওর্য়াড কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ্বাস, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি শ্রমিক নেতা আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি শ্রমিক নেতা সেলিম মাহমুদ।

সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম।

রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, ৭ নভেম্বর ছিল বাসদের ৪০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও মহান রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ১০৩ তম বার্ষিকী। আজ থেকে ১০৩ বছর আগে রাশিয়ায় মহামতি লেলিনের নেতৃত্বে প্রথম শ্রমিক শ্রেণির রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। মানব কল্যাণের এমন কোন অভিমুখ ছিল না যেদিকে সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থা নিত্য নতুন অর্জনের স্বাক্ষর রাখেনি। ১৯২৯ সালে মহামন্দার যখন পৃথিবীর উন্নত ধনতান্ত্রিক দেশগুলো ধুঁকছে সেসময় পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার মাধ্যমে রাশিয়ার প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পেয়েছিল। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জনগণের মুক্তি সংগ্রামে সমাজতান্ত্রিক রাশিয়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

তিনি আরও বলেন, আমরা যখন আমাদের দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে মিলিত হয়েছি, তখন দেশে চরম ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন চলছে। গণতন্ত্র আজ নির্বাসিত। প্রবল দুর্নীতি, লুটপাট, অনিয়ম এবং সরকারের গণবিরোধী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে যাতে কোন আন্দোলন গড়ে উঠতে না পারে
তারজন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করে সাংবাদিকসহ অনেক মানুষকে জেলখানায় পুরে রেখেছে সরকার। জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া। রাষ্ট্রীয় ২৫ টি পাটকল বন্ধ করে স্থায়ী-অস্থায়ী ৫১ হাজার শ্রমিককে বেকার করেছে। গার্মেন্টস মালিকরা সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা পেলেও শ্রমিকদের কপালে জুটেছে ছাঁটাই ও নির্যাতন। নারী ধর্ষণ-নির্যাতন ভয়াবহ মাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে বিচারহীনতার কারণে।

অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনার সময় স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দৈন্যতা ফুটে উঠেছে। দ্বিতীয় ধাপের করোনা মোকাবিলায় স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো, ঔষধের দাম কমানো, ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত, ডাক্তারদের ভিজিট কমিয়ে আনার দাবি জানান।

সভাপতির বক্তব্যে নিখিল দাস বলেন, কর্তাব্যক্তিরা আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক থাকার কথা বললেও নারায়ণগঞ্জে খুন, সন্ত্রাস, ধর্ষণ, মাদকের ব্যবহার কমেনি। ত্বকী হত্যার আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায়। অবাধে চলছে বুড়িগঙ্গা ও শীতলক্ষা দূষণ। একটি অশুভ শক্তি তাদের স্বার্থের বিরুদ্ধে
যাওয়ায় নারায়ণগঞ্জের কিছু জনপ্রিয় পত্রিকা বন্ধের পাঁয়তারা চালায় নিয়মিত। এদের চক্রান্তেই ব্লক করা হয়েছে অনলাইন পত্রিকা প্রেস নারায়ণগঞ্জ। আগেও সময়ের নারায়ণগঞ্জসহ আরও কিছু পত্রিকা বন্ধ করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং দ্রুত ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বন্ধ পত্রিকাগুলো চালুর দাবি জানাই।

সমাবেশে শেষে শহরে লাল পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 311
    Shares